close
জানা-অজানা

প্রেমিক প্রেমিকা পার্কে গিয়ে অবাধ মেলামেশা করতে গিয়ে হাতে নাতে ধরা, এরপর দেখুন মাইর কাকে বলে ! ভিডিওটি না দেখলে মিস

Capture

ভিডিওটি দেখতে নিচেযান

অন্যরা যা পড়ছেন

>>>>>>বোন উঠে যাহ তোকে আমি সাজিয়ে দিবো আজ >>>>>>

___মধ্যবিত্ত পরিবারের দুইটা মেয়ে তাদের কনো ভাই নাই বড়বোন এর নাম নুসরাত ছোটবোন এর নাম জেরিন। তাদের বাবা প্রবাসে থাকে মা,বাবা দুই মেয়েকে খুব ভালোবাসে। কিন্তু বড়মেয়ে তার ছোটবোন কে একদম দেখতে পারে না জেরিনকে।জেরিন এর কথা শুনলে নুসরাত রাগ করে কারণ জেরিন একটু পাকনা পাকনা কথা বলে তাই। নুসরাত পাকনা কথা সহ্য করতে পারেনা,জেরিন নুসরাত থেকে অনেকছোট বয়সে।

___বাবা নুসরাত এর জন্য প্রবাস থেকে সাজুগজু আইটেম দিছে।আর জেরিন এর জন্য চকলেট কিন্তু জেরিন বোনের গুলো দরকার সেও সাজুগজু করবে।জেরিন তার বড়বোনকে বলে?আপু তুই আমাকে একটু সুন্দর করে বউ সাজিয়ে দেয়?নুসরাত বলে যা এখান থেকে বাবা তোর জন্য চকলেট দিছে সেগুলো বসে বসে সেগুলো খা।কিন্তু জেরিন পিচ্চি কি আর বু্ঝে সে কি করে নিজে নিজে বউ সাজতে গিয়ে নুসরাত এর সব জিনিশ গু্লো নষ্ট করছে।এগুলো দেখে নুসরাত মাথা গরম দিলো ঠাস!ঠাস! কয় একটা থাপ্পড়,জেরিন কান্না করতে করতে মায়ের কাছে চলে গেলো মা বলে? তুই তাকে মারলি কেনো সে কি বুঝে?নুসরাত বলে সে সব বুঝে দেখো না পাকনা পাকনা কথা বলে।

___সকাল বেলায় নুসরাত স্কুলে যাবে, তার কলম একটাও খুঁজে পেতেছেনা। কি করে পাবে কলমতো নষ্ট করে ফেলছে জেরিন এ। তখনও নুসরাত অনেককথা বলে তাকে, চলে গেলো স্কুলে।
স্কুল ছুটি শেষে নুসরাত এর দুইটা বান্ধবী সাথে আসে তার বাড়িত।জেরিন তাদের দেখে পাকনা পাকনা কথা বলা শুরু করে। নুসরাত বলে?যা এখান থেকে না হয় আম্মুকে ডাকবো বান্ধবীরা বলে?আরে থাকনা তোর বোনটা মিষ্টি কথা বলে দেখবি বড় হলে অনেক চালাক হবে।নুসরাত বান্ধবীদের জন্য নাস্তা আনতে গেছে, এদিকে নুসরাত এর বান্ধবীরা বলে? জেরিন তোমার প্রিয় বন্ধু কে?জেরিন বলে আমার কিউট আপু নুসরাত আমি তার সাথে সবসময় ঝগড়া করি তার কলম দিয়ে মজা করে লেখি, তার লিপস্টিক আমি দিতে পারি তার সব সাজুগজু আইটেম আমি চুরি করে করে দিতে পারি, তাই আমার প্রিয় বন্ধু আমার আপুনি নুসরাত। নুসরাত এর বান্ধবীরা শুনে হাসতেছে আর বলে কি পাকনা মেয়েরে বা।বান্ধবীরা চলে গেলো জেরিনকে উপহার স্বরপ তাদের কলম দিয়ে যায়।
নুসরাত মনে করে বান্ধবীদের ব্যাগ থেকে চুরি করে কলম নিয়ে নিছে তাই অনেক কথা বলছে জেরিনকে।কিন্তু সে কলম তার বান্ধবীরা তাকে জেরিনকে উপহার দিছে কিন্তু নুসরাত কখনো জেরিন এর কথা বিশ্বাস করে না। সবসময় একটা না একটা নিয়ে ছোটবোনের সাথে ঝগড়া করে নুসরাত।

একদিন নুসরাত এর মা খালার বাড়িতে যাবে, তবে জেরিন মায়ের সাথে যাবে না সে তার আপুর কাছে থাকবে এবলে আর যাওয়া হলো না জেরিন।দুপুর যখন ১২টা বাজে জেরিন বলে আপু চল আমরা গোসল করবো।আমাকে আজকে বউ সাজিয়ে দেয়, নুসরাত বলে? এখন ও ভাত রান্না হয় নাই আর তুই গোসল করা আর সাজা নিয়ে চিন্তা আছোত এখান থেকে যাহ, জেরিন বোনের কথা শুনে চলে গেলো পুকুর পাড়ে। সেখানে গোসল করবে গোসল করতে গিয়ে কিভাবে জানি পুকুরে পড়ে গেছে পাকনা মেয়ে জেরিন। দুপুর ১২ টা কেও নাই জেরিন পানি থেকে আর উঠতে পারে নাই সেখানে পানি খেয়ে মারা গেছে। নুসরাত রান্না করা শেষ পুকুরে গোসল করতে আসবে কিন্তু জেরিনকে কোথাও খুঁজে পাচ্ছেনা অনেক তলাশী করার পরেও পাওয়া গেলো না জেরিন কে।হঠাৎ একটা ছেলে বলে পুকুরের মাঝখানে এটা কে এবলে সাঁতার কেটে যাই দেখে পাকনা মেয়ে জেরিন পুকুরের পানিতে ভেসে আছে।জেরিন লাশ যখন নুসরাত এর সামনে নিয়ে আসে সাথে সাথে নুসরাত জ্ঞান হারিয়ে পেলে। প্রায় একঘন্টা পরে তার জ্ঞান ফিরে আসে এবার ছোট বোনকে জড়িয়ে ধরে কান্না করতে করতে আর বলে জেরিন আমি প্রমিস করতেছি তোকে সবসময় বউ সাজিয়ে দিবো বোন তুই কথা বল। আমি তোকে আর কখনো মারবো না কিন্তু জেরিন আর কখনো তার বোনের আওয়াজ শুনবে না,বউ সাজা হলো না পাকনা মেয়ে জেরিনকে।

__নুসরাত কান্না করতে করতে মায়ের কাছে ফোন করে? মা ওমা তোমার মেয়ে জেরিনকে সাজানোর জন্য তাড়াতাড়ি বাড়িতে আসো।

?মোঃইমরান হোসাইন।

nayem

The author nayem

Leave a Response