Warning: Cannot modify header information - headers already sent by (output started at /var/sites/r/radioghumti.com/public_html/index.php:44) in /var/sites/r/radioghumti.com/public_html/wp-content/plugins/wp-super-cache/wp-cache-phase2.php on line 62
অন্যান্য – Page 144 – Radio Ghumi
close

অন্যান্য

অন্যান্য

পোস্টারে খালেদার ছবি ব্যবহার করতে চায় ঐক্যফ্রন্ট

6xyuKk_1544762652

আসন্ন সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীদের পোস্টারে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহারের সুযোগ চেয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। বৃহস্পতিবার বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একটি প্রতিনিধিদল নির্বাচন কমিশনে এসে এ সুযোগ চান।

 

প্রতিনিধি দলে অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বিরোধীদলীয় রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আটটি দলকে ধানের শীষ প্রতীক ব্যবহার করতে দিয়েছে বিএনপি। সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন

 

আলাল সাংবাদিকদের বলেন, জাতীয় ঐকফ্রন্ট ও ২০ দলের জোটের আমরা সবাই যেহেতু ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছি। তাই আমাদের সব প্রার্থীর পোস্টারে বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহারের বিষয়টি জানাতে এসেছি। নির্বাচন কমিশনের কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে না

পারায় ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধিরা এ সংক্রান্ত চিঠি জমা দিয়ে যান। নির্বাচন আইন অনুযায়ী, প্রার্থী তার পোস্টারে দলীয় প্রধান ছাড়া অন্য কারো ছবি ব্যবহার করতে পারেন না। ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দে পর প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারণায় নেমেছেন। প্রচার কাজে পোস্টারে প্রার্থিরা মার্ক, প্রার্থি নিজের ও দলীয় প্রধানের ফটো ব্যবহার করছেন।

সূত্র: কালেরকন্ঠ।

read more
অন্যান্য

জাতীয় পার্টির নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা

VscjHz_1544764650

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ১৮ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছে জাতীয় পার্টি। আজ শুক্রবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এই ইশতেহার ঘোষণা করেন চেয়ারম্যানের সদ্যনিযুক্ত বিশেষ সহকারী,

 

সদ্যসাবেক মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার। নির্বাচনি ইশতেহারে এবারও প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থার কথা বলেছে জাতীয় পার্টি। ক্ষমতায় গেলে দলটি ঢাকা থেকে কমপক্ষে অর্ধেক সদর দপ্তর প্রাদেশিক রাজধানীতে স্থানান্তর করবে। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে নির্বাচন ব্যবস্থার সংস্কার

 

করবে। আনুপাতিক ভোটের ভিত্তিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের বিধান করা হবে। পূর্ণাঙ্গ উপজেলা ব্যবস্থা প্রবর্তনের কথাও বলছে দলটি। নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে থাকবে উপজেলার সব ক্ষমতা। চালু করা হবে উপজেলা আদালত ও পারিবারিক আদালত। জাতীয় পার্টি

ক্ষমতায় গেলে এক বছরের মধ্যে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত করবে। পাঁচ বছরের মধ্যে মামলাজট শূন্যে নামিয়ে আনতে চায় দলটি। সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও দুর্নীতি দমনে কঠোর আইন প্রণয়ন করতে চায় জাতীয় পার্টি। দলটি ক্ষমতায় গেলে তিন মাসের মধ্যে সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি নির্মূল করবে।

ক্ষমতায় গেলে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি স্থিতিশীল রাখবে জাতীয় পার্টি। এছাড়া, দলটি সংবিধান সংশোধন করে সংসদের আসন সংখ্যা ৩৮০টি করতে চায়। এরমধ্যে নতুন ৩০টি আসন সংখ্যালঘুদের জন্য বরাদ্দ থাকবে। ইশতেহারের সমাপনিতে বলা হয়, দেশ এখন ক্রান্তিকাল অতিক্রম

 

করছে। এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের সময় এসেছে। ক্ষমতায় গেলে যেকোন কিছুর বিনিময়ে জাতীয় পার্টি জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা ও চাহিদা পূরণ করবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়। জাতীয় পার্টির ইশতেহারে যেসব বিষয়গুলো প্রধান্য পেয়েছে তা হলো- প্রাদেশিক ব্যবস্থা প্রবর্তন, দুই স্তর বিশিষ্ট

সরকার কাঠামো, ধর্মীয় মূল্যবোধ, কৃষকের কল্যাণ সাধন, সন্ত্রাস দমনে কঠোর ব্যবস্থা, গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি স্থিতিশীল রাখা, ফসলি জমি নষ্ট না করা, খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষা পদ্ধতির সংশোধন, স্বাস্থ্যসেবা সম্প্রসারণ ইত্যাদি।

read more
অন্যান্য

আন্দালিব রহমান পার্থ’র ফেসবুক আইডি হ্যাকড

XOZ2EK_1519992884

বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থর ফেসবুক আইডি হ্যাকড হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) দুপুরে আন্দালিব রহমান পার্থ গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। আন্দালিব রহমান বলেন, ১৪ ঘণ্টা আগে আমার Andaleeve Rahman আইডিটি হ্যাকড হয়ে গেছে। তবে আমার ফেসবুক ভেরিফায়েড আইডি সচল রয়েছে।

 

 

এছাড়া আন্দালিব রহমান তার ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্টে আইডি হ্যাকড হওয়ার বিষয়টি নিয়ে স্ট্যাটাস দেন। এতে তার অ্যাকাউন্ট থেকে দেওয়া যে কোনো স্ট্যাটাসের বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলেছেন। উল্লেখ্য, ঢাকা-১৭ (গুলশান, বনানী, ঢাকা সেনানিবাস ও ভাষানটেকের কিছু অংশ) আসন থেকে ধানের শীষের প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন আন্দালিব রহমান।

read more
অন্যান্য

অবশেষে মান-অভিমান ভেঙ্গে প্রচারে মুক্তাদির-আরিফ

kra98F_1544686941

একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখেই অতীতের কষ্ট-দুঃখ,মান-অভিমান সবভুলে অবশেষে ভেঙে সিলেট-১ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী খন্দকার আবদুল মুক্তাদিরকে নিয়ে প্রচারণার মাঠে নামলেন সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এর আগে মুক্তাদির দু’দফায় গিয়েছিলেন আরিফের কাছে।

 

আহ্বান জানান ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত করতে মাঠে নামতেই হবে। অনুরোধ জানান অতীতের কষ্ট-দুঃখ থাকলে ভুলে যাওয়ার। মেয়র আরিফও আশ্বাস দেন ধানের শীষের জন্য তিনি অবশ্যই মাঠে নামবেন। অবশেষে বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে মেয়র আরিফ মুক্তাদিরকে নিয়ে ধানের

 

শীষের পক্ষে প্রচারণার মাঠে নামেন। সঙ্গে ছিলেন ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা আ স ম আবদুর রব ও ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। প্রচারণার একপর্যায়ে ডা. জাফরুল্লাহ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। এর আগে রোববার (৯ডিসেম্বর) দুপুরে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েই

নগরভবনে আরিফের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মুক্তাদির। পরে বুধবার (১২ ডিসেম্বর) সোজা চলে যান তার বাসায়। এদিকে বিএনপির নেতাকর্মীরা বলছেন, খন্দকার মুক্তাদিরের সঙ্গে আরিফুল হকের সম্পর্কে ঐক্য এলে সিলেট-১ আসনে বিএনপির জন্য ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। উল্লেখ্য, গত সিটি

নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থী আরিফের বিরোধিতার অভিযোগ ছিল মুক্তাদিরের বিরুদ্ধে। ফলে আরিফ ও তার অনুসারীরা ছিলেন মুক্তাদিরের ওপর চরম ক্ষুব্ধ। এমনকি সিলেট-১ আসনে মুক্তাদিরের বিকল্প হিসেবে দলের ভাইস চেয়ারম্যান ইনাম আহমদ চৌধুরীকে বিএনপির মনোনয়ন চেয়ে

 

হাইকমান্ডের কাছে চিঠি পাঠিয়েছিলেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন নেতা। তবে বিএনপির হাইকমান্ড দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা খন্দকার আবদুল মুক্তাদিরকেই মনোনয়ন দেয়। দলীয় মনোনয়নের পরও আরিফ ও তার বলয় দূরে ছিলেন মুক্তাদিরের কাছ

থেকে। অবশেষে সেই দূরত্বের অবসান হয়েছে। মুক্তাদিরকে নিয়ে মাঠে নেমেছেন আরিফ।

read more
অন্যান্য

বিএনপির ওয়েবসাইট বন্ধ

hh8zK1_1544684300

বিএনপির ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, দলের ওয়েবসাইট bnpbangladesh.com ব্লক করা হয়েছে। ২০১৬ সালের ১ সেপ্টেম্বর দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ওয়েবসাইটটি আনুষ্ঠানিকভাবে

 

উদ্বোধন করেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ ওয়েবসাইটে দলের কর্মসূচি, বক্তব্য-বিবৃতি প্রচার করা হতো। রিজভী বলেন, হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়েই বিএনপির ওয়েবসাইটটি সরকার ব্লক করেছে। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করে সরকার এখন বিরোধী দলের

 

প্রযুক্তি ব্যবহারের অধিকারও হরণ করছে। অবিলম্বে ওয়েবসাইটটি খুলে দেওয়ার দাবি জানান তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান জানান, গত মঙ্গলবার থেকে তারা ওয়েবসাইটটি বন্ধ পাচ্ছেন।

সূত্র: সমকাল

read more
অন্যান্য

‘২০০৮ নির্বাচনের চেয়ে বেশি ব্যবধানে জিতবে আ’লীগ’

qfUmDc_1533016991

গড়ে আওয়ামী লীগের প্রতি ৬৬ শতাংশ এবং বিএনপির প্রতি ১৯.৯ শতাংশ মানুষের সমর্থন রয়েছে। একটি জনমত জরিপের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। বুধবার (১৩

 

ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে সজীব ওয়াজেদ তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে দেওয়া স্ট্যাটাসে এ তধ্য জানান। এতে তিনি চলতি বছরের আগস্ট থেকে অক্টোবরের মধ্যে চালানো এ এযাবৎকালের সবচেয়ে বড় জাতীয় জনমত জরিপ বলে জানান। জয়ের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু দেওয়া হলো,

 

 

 

“এই বছরের আগস্ট থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত আমরা এযাবৎকালের সবচেয়ে বড় জাতীয় জনমত জরিপটি করাই। নিরপেক্ষ গবেষণা সংগঠন রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (আরডিসি) দ্বারা এই জরিপটি পরিচালনা করা হয়। এ বছরের মেয়র নির্বাচনের জরিপটিও এই সংগঠনটিই করেছিল। আপনাদের হয়তো মনে আছে আমার পেজ থেকে সেই জরিপটিও শেয়ার করি যার ফলাফল নির্বাচনের ফলাফলের সঙ্গে মোটামুটি ভালোই

 

মিলেছিল। এই জরিপটির জন্য আমরা ৫১টি নির্বাচনী আসনের ৫১,০০০ নিবন্ধিত ভোটারের সঙ্গে কথা বলি, অর্থাৎ প্রতি আসনে অন্তত ১,০০০ ভোটারের সঙ্গে। ১৯৯১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত সব নির্বাচনের ফলাফল আমলে নিয়েই এই ৫১টি আসন আমরা বৈজ্ঞানিকভাবে বেছে নিয়েছিলাম। এই আসনগুলোতে আমরা সবচেয়ে বেশি ভিন্ন ভিন্ন দলের জন্য ভোট দেয়ার প্রবণতা দেখতে পাই বা সাধারণত জয়ের পার্থক্য সবচেয়ে কম থাকে।

 

অর্থাৎ, এই আসনগুলো নিয়েই আমাদের দল সবচেয়ে বেশি চিন্তিত ছিল। যেহেতু জরিপটি মনোনয়ন প্রক্রিয়ার আগে করা হয়েছিল, সেহেতু আমরা প্রার্থীদের ব্যাপারে জনমত জানতে পারিনি। কিন্তু দলগতভাবে, ৫১টি আসনেই আওয়ামী লীগ এগিয়ে আছে। সজীব ওয়াজেদ জয়ের ফেসবুক থেকে নেওয়া স্ক্রিনশট১২.২ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে কম ব্যবধানে জয়ের সম্ভাবনা জয়পুরহাট-১ আসনে আর ৭৫ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়ের সম্ভাবনা বরিশাল-৪ আসনে। যারা এখনো সিদ্ধান্ত নেননি তাদের সবচেয়ে কম সংখ্যা দেখা যাচ্ছে টাঙ্গাইল-৩ আসনে, ২.৫ শতাংশ। এই আসনে

 

আওয়ামী লীগের সঙ্গে নিকটবর্তী দলের ব্যবধান ৪১.৫ শতাংশ। অন্যদিকে, ১৯.৮ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে বেশি সিদ্ধান্তহীনদের সংখ্যা সাতক্ষীরা-৩ আসনে, যেখানেও আওয়ামী লীগের জয়লাভের ব্যবধান ৬৪.৭ শতাংশ। গড়ে আওয়ামী লীগের জন্য সমর্থন ৬৬ শতাংশ মানুষের, বিএনপির জন্য ১৯.৯ শতাংশ আর ৮.৬ শতাংশ ভোটার সিদ্ধান্ত নেননি। যারা সিদ্ধান্ত নেননি তাদের থেকে আওয়ামী লীগের সমর্থনের ব্যবধান অনেক বেশি। আরো গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি তা হচ্ছে কোনো আসনেই আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির সমর্থনের পার্থক্য ১০ শতাংশের এর মধ্যে নেই। শুধু ২টি আসনেই

 

আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির সমর্থনের পার্থক্য ২০ শতাংশ। এর মধ্যে ২৮টি তে, অর্থাৎ অর্ধেকের বেশি জরিপকৃত আসনে, আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির সমর্থনের পার্থক্য ৫০ শতাংশের বেশি। সমর্থনের পার্থক্য ১০ শতাংশের এর বেশি হলেই দ্বিতীয় দলটির জন্য তা পার করা মোটামুটি অসম্ভব হয়ে যায়, আর ২০ শতাংশ এর বেশি পার্থক্য থাকলে একাধিক দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের দ্বারাও তা টপকানো সম্ভব হয় না। এই ফলাফলগুলো বয়স ও

 

লিঙ্গের ওপর নির্ভর করে বের করা হয়েছে, তাই মোট ফলাফল সর্বক্ষেত্রে শতভাগ নয়। আসন অনুযায়ী ‘মার্জিন অফ এরর’ ৩ শতাংশ এবং আস্থা স্তর বা Confidence Level ৯৫%। এই জরিপগুলোর ওপর ভিত্তি করে এবং ১৯৯১-২০০৮ এর নির্বাচনের তথ্য বিশ্লেষণ করার পর আমার বিশ্বাস যে, আওয়ামী লীগ এই নির্বাচনে ১৬৮ থেকে ২২২ টি আসনে জয়লাভ করবে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের চেয়েও বেশি ব্যবধানে এবার আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে।”

read more
অন্যান্য

আপনি কি জন্মনিয়ন্ত্রণ করছেন? দুদকের আইনজীবীকে পাপিয়া (ভিডিও)

U3ze3G_1544638107

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দণ্ডিতসহ সবার অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা নিয়ে অ্যাডভোকেট আশিফা আশরাফী পাপিয়ার তোপের মুখে পড়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। দণ্ডিতদের কেন ভোটে অংশ নেওয়ার সুযোগ দিচ্ছেন না- উল্লেখ করে

 

পাপিয়া বলেন, আপনি কি জন্মনিয়ন্ত্রণ করছেন? উত্তরে দুদকের আইনজীবী বলেন, না, ভোটের নিয়ন্ত্রণ। আইনজীবী খুরশীদ আলম খানকে পাপিয়া কী বলছেন তা হুবহু তুলে ধরা হলো- পাপিয়া বলেন, ‘হাফটা খাওয়ানোর সুযোগ নেই। আমি বললাম, না। তো কী করতে চান? ছোট একটা দল করতে

 

চাই। দুজন থাকবো। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পাঁচ বছর পর বিপদে পড়বে। আমাদের নিয়ে অ্যালায়েন্স গ্রুপ করবে। তখন আমি রাজা হবো। ’ খুরশীদ আলম খানের উদ্দেশে পাপিয়া বলেন, ‘হাসিনা, খালেদা যারা যারা আছে সবাইকে ভোট করতে দিবেন। আপনি কি জন্মনিয়ন্ত্রণ করছেন? ভোট

কি লাইগেশন করছেন?’ তখন খুরশীদ আলম খান বলেন, ভোট নিয়ন্ত্রণ। এর উত্তরে পাপিয়া বলেন, ‘কিসের ভোট নিয়ন্ত্রণ? ইসি যে এতগুলো রিটার্নিং অফিসার দিয়ে নমিনেশন অবৈধ করেছে। শুধুমাত্র রিটার্নিং অফিসারের নেতৃত্বে ভোট চলে নাকি বাংলাদেশে?’ এ সময় খুরশীদ আলম খান বলেন,

রিটার্নিং অফিসারদের ৫০% অর্ডার রিভার্স হয়ে গেছে। তখন পাপিয়া বলেন, তাহলে ওদের আন্ডারে ভোটটা কীভাবে হবে সেটা বলেন? তখন খুরশীদ আলম খান বলেন, আপনি ফেয়ার ভোট দেবেন। আপনি কমপ্লেইন দেবেন, অবজেকশন দেবেন। এ সময় পাপিয়া আচরণবিধি খাওয়ানোর কথা বললে

খুরশীদ আলম খান বলেন, হ্যাঁ আচরণবিধি খাওয়াতে খাওয়াতে শেষ করে দিয়েছেন। পাপিয়া বলেন, কারও ভোটে আপনি বাধা দেবেন না। খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘আরে ভাই, মনে হয় আমি …করছি। ’ পাপিয়া আরও বলেন, ‘শুধু আপনার সঙ্গে আমার খাতির আছে। তা না হলে এতক্ষণে

আপনার সঙ্গে আমার হাতাহাতি হয়ে যেত। যত খারাপ খারাপ কাজ আপনি করলেন গত ১০ বছরে। সব খারাপ খারাপ কাজ করছেন। ’ অ্যাডভোকেট পাপিয়া বলেন,বাংলাদেশ উন্নয়নের খাতায় এখনও উঠতে পারছে? প্রতি বছর ৭২ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হচ্ছে। এ সময়

খুরশদি আলম খান বলেন, ‘আপা আমাদের পারফরমেন্স তো আপনি নোটিশ বোর্ডেই দেখছেন? এর উত্তরে পাপিয়া বলেন, কী দেখব আপনাদের। দুদকের সঙ্গে আর দুর্নীতির সঙ্গে আপনাদের কোনো পারফরমেন্সই নাই। ’ পাপিয়া আরও বলেন, সাইফুর রহমানের ছেলে কেন ভোট করছে? শেখ

 

সেলিম কেন ভোট করছে, শেখ হেলাল কেন ভোট করছে নিয়ে আসতে হবে? নাজমুল হুদা কেন ভোট করছে? তখন খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘বার বার বলছি, নাজমুল হুদা কীভাবে করছেন সেটা আমরাই জানি না।’ এর উত্তরে পাপিয়া বলেন, আপনারা জানেন না বললে তো হবে না। খুরশীদ

আলম খান আরও বলেন, ‘আমরা চাই আপনার মতো একটা স্পিডেট পারসন ভোটে আসুক। পাপিয়া বলেন, ‘আমি ক্ষমতায় আসলে দেশ প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পাবে। আওয়ামী লীগও আমাকে ক্ষমতায় আনবে না, বিএনপিও না। ’ কেউ আপনাকে আটকিয়ে রাখতে পারবে না খুরশীদ আলমের এমন বক্তব্যে পাপিয়া বলেন, আপনি তো জাতিই শেষ করে দিচ্ছেন। নাজমুল হুদার মতো একজন…

সূত্র: আমাদের সময়।

read more
অন্যান্য

টুঙ্গীপাড়ার পথে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গী রিয়াজ-ফেরদৌস

Untitled-3-27-857×400

নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বুধবার সকালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রনায়ক রিয়াজ আহমেদ ও ফেরদৌস আহমেদ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফেরদৌস আহমেদ। ফেরদৌস কালের বলেন, আমিও রিয়াজ

 

ভাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে রওনা দিয়েছি। আজ প্রথমে গিয়েই আমরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার জিয়ারত করবো। এরপর মিটিং রয়েছে তাতে অংশ নেবো। তিনি বলেন, চলচ্চিত্র পরিবারের প্রতিনিধি হয়েই আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে

 

নির্বাচনী প্রচারণায় আছি। আগামীকাল পথ সভা রয়েছে সেটাতেও অংশ নেবো। আগামীকাল ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেবো। এর আগে গত সেপ্টেম্বরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জাতি সংঘের ৭২’তম অধিবেশন সফর সঙ্গী হিসেবে ছিলেন রিয়াজ ও ফেরদৌস।

 

এই প্রতিবেদন লেখার সময় তাঁরা পদ্মায় ফেরি থেকে নামছিলেন।

read more
অন্যান্য

স্ত্রী পুলিশের এসআই, স্বামী মাদক ব্যবসায়ী!

t1FQQ9_1544612039

রাজধানীর যাত্রাবাড়ি থানার এসআই নাজনীন আক্তারের স্বামী নিলয় আহম্মেদকে ৫৩ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেপ্তার করেছে নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) রাতে ফতুল্লা থানার মাসদাইর করবস্থানের সামনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ সড়ক থেকে দারোগা আবিদ তাকে

 

গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মাদক আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এবিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ্ মো. মঞ্জুর কাদের সত্যতা স্বীকার করে বিডি২৪লাইভকে বলেন, মঙ্গলবার রাতে ফতুল্লা থানার মাসদাইর করবস্থানের সামনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ

 

সড়ক থেকে একটি মোটরসাইকেল থামিয়ে তল্লাশির সময় যাত্রাবাড়ি থানার এসআই নাজনীন আক্তারের স্বামী নিলয় আহম্মেদ এবং তার দুইজন সঙ্গীকে ৫৩ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং কিছু গাঁজাসহ গ্রেপ্তার করেছে নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

 

এ বিষয়ে ফতুল্লা থানার এসআই আবেদের মোবাইল ফোনে একাধীকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

read more
অন্যান্য

নৌকার মিছিলে বোমা হামলা

1516697804

নেত্রকোণার আটপাড়া উপজেলায় যুবলীগের মিছিলে পেট্রোল বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। আজ বুধবার (১২ ডিসেম্বর) আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ের সামনে থেকে যুবলীগের নেতাকর্মীরা মিছিল বের করে স্থানীয় ব্রুজের বাজার ব্রিজ সংলগ্ন স্থানে পৌঁছলে এই হামলা চালানো হয়। এ বিষয়ে

 

আটপাড়া থানার ওসি অভি রঞ্জন দেব সাংবাদিকদের বলেন, বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলা সদরের ইটাখলা বাজারে এ হামলা হয়; যেখানে অন্তত সাত জন আহত হয়েছেন। এ সময় আহত হন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নিজাম ইয়ার খান, ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সুফল খান, ছাত্রলীগ নেতা শিবলী, মোহন,

 

তুহিন, হৃদয় ও লিমন নামে ৭ জন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মো: খায়রুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস রানা আনজু জানান, বিএনপি আসন্ন নির্বাচনকে বানচাল করার লক্ষ্যে নাশকতা সৃষ্টি করছে। আমরা

থানায় মামলা করে আইনের আশ্রয় গ্রহণ করব। ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানান ওসি। তিনি আরও জানান যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নেত্রকোণা-৩ (আটপাড়া-কেন্দুয়া) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী অসীম কুমার উকিল অভিযোগ করেন

নির্বাচন বানচাল করতে একটি গোষ্ঠী এ হামলা চালাচ্ছে। ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপি-জামায়াত দেশে ব্যাপক পেট্রোল বোমা হামলা চালায়; যাতে বহু লোকের প্রাণহানি হয়। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে আটপাড়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল

 

ইসলাম রফিক জানান, আমার জানা মতে এ ঘটনার সঙ্গে আমাদের দলের কোনো নেতাকর্মী জড়িত নয়। কারণ ঘটনাস্থলে আমাদের কোনো লোকজনই ছিলো না।

সূএঃ- bd24live.com

read more
1 142 143 144 145 146 152
Page 144 of 152