close

অন্যান্য

অন্যান্য

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের জন্য দুঃসংবাদ

ubK4nw_1547644271

চলতি মাস থেকেই মোবাইল ফোনের সাত দিনের নিচের ইন্টারনেট প্যাকেজ আর থাকছে না। যা কার্যকর হবে আগামী ২৭ জানুয়ারি থেকে। এর আগেও একবার সাতদিনের নিচের প্যাকেজ বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল বিটিআরসি। তবে, সে সময় সে নির্দেশ স্থগিত রাখা হয়। এ তথ্য

 

নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জহুরুল হক। বুধবার (১৬ জানুয়ারি) বিটিআরসি ভবনে টেলিকম রিপোটার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশের (টিআরএনবি) সদস্যদের সঙ্গে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় জহুরুল হক বলেন, বেশির ভাগ

 

মোবাইল ফোন কোম্পানির অনেক প্যাকেজ চালু থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে তা কার্যকর করা যায়নি। এসব প্যাকেজের সব ফেব্রুয়ারির শুরুতে শেষ হয়ে যাবে। বিটিআরসির একজন কর্মকর্তা বলেন, চলতি প্যাকেজের ডেটা শেষ না হলে তা পরবর্তী ৬টি সাইকেল (প্যাকেজ) পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে

 

বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিটিআরসি। টিআরএনবি সভাপতি জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার দে’র সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বিটিআরসির কমিশনার ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন

read more
অন্যান্য

বৃহস্পতিবার বৈঠকে বসছেন ড. কামাল

kUNYu3_1547649559

বৃহস্পতিবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জাসদ (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, ডা. জাফরউল্লাহসহ জোটটির স্টিয়ারিং কমিটির সদস্যদের

 

সাথে বৈঠকে বসবেন ড. কামাল হোসেন। পেশাজীবী সম্মেলনের আয়োজনসহ বেশ কয়েকটি বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বসছেন তিনি। বিকেল ৪টায় ড. কামাল হোসেনের মতিঝিলের চেম্বারে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মিডিয়া

 

কো-অর্ডিনেটর লতিফুল বারী হামিম বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পেশাজীবীসহ রাজনৈতিক দলের নেতাদের নিয়ে এ মাসের শেষের দিকে একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সেই সম্মেলনের প্রস্তুতি, তারিখ নির্ধারণ, কারা কারা দাওয়াত পাবেন, কীভাবে অনুষ্ঠান সম্পন্ন এসব বিষয়ে বৈঠকে

আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের এক শীর্ষ নেতা জানান, জাতীয় সংলাপের বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা হবে। এ ছাড়াও সংলাপে কে কে যাবে, কী কী এজেন্ডা থাকবে, সেগুলো নিয়ে কথা হবে।

read more
অন্যান্য

প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে কোটিপতি!

A5kQcR_1547654013

দীর্ঘদিন ধরে একদল প্রতারক চক্র প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের লোগোযুক্ত চিঠি ছাপিয়ে তাতে সই নকল করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তারা প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, দুদক চেয়ারম্যান, এনবিআরের চেয়ারম্যান, এনএসআই প্রধানের সিল-স্বাক্ষর নকল করে মানুষকে ধোকা

 

দিতেন। দীর্ঘদিন ধরে তারা চালিয়ে যাচ্ছিলেন এই প্রতারণা, কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। অবশেষে এই জালিয়াত চক্রের মূলহোতা হেলাল উদ্দিনসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে মালিবাগের সিআইডি কার্যালয়ে এক সংবাদ

 

সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়ে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (সিরিয়াস অ্যান্ড হোমিসাইডাল স্কোয়াড) সৈয়দা জান্নাত আরা বলেন, গ্রেফতার ছয়জনের মধ্যে তিনজনকে গত বছরের ২৯ নভেম্বর এবং বাকি তিনজনকে সোমবার রাতে গ্রেফতার করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর জালিয়াতি চক্রের

 

গ্রেফতারকৃত তিন সদস্য। ছবি: সংগৃহীত ২৯ নভেম্বর গ্রেফতার তিনজন হচ্ছেন, হেলাল উদ্দিন, মো. এনামুল হক (৪৮) ও নাজমুল হাবিব (৫৪)। তবে তদন্তের স্বার্থে সোমবার রাতে গ্রেফতার হওয়া আসামিদের নাম জানাননি তিনি।

read more
অন্যান্য

শাহনাজের স্কুটি উদ্ধার হলেও ঢাবি ছাত্রের বাইক ২ মাসেও কেন উদ্ধার হলো না?

15-3

প্রায় ২ মাস আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি থেকে বাইক হারান বেসরকারী টিভি চ্যানেল সময় টিভির সাংবাদিক ও ঢাবি সাংবাদিকতা বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র শিমুল খান। তিনি এ বিষয়ে বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। ডায়রি নম্বর ১১৭। আর চুরি হওয়া বাইকটির

 

নিবন্ধন নম্বর ঢাকা মেট্রো-২৭-৪১০০। এ ব্যাপারে শিমুল খান আক্ষেপ করে নিজের ফেসবুক ওয়ালে লিখেন , এই বাইক আমারো আবেগ ভালবাসা জীবিকার মাধ্যম ছিল। উদ্ধার হবে কি! এদেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হবে। আইন সবার জন্য সমান হবে। এমন সুন্দর বাংলাদেশের স্বপ্নই দেখি।

 

শাহনাজের চুরি যাওয়া বাইক ফিরে পাওয়ার জন্য আজকে ধন্যবাদ কিংবা শুভেচ্ছায় ভাসছে আমাদের আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। অথচ তাদের কাজটাই হলো মানুষের নিরাপত্তা দেয়া। আমরা যখন স্বাভাবিক কাজ তাদের কাছ থেকে না পাই তখন কদাচিৎ পেয়ে শুভেচ্ছা ধন্যবাদে ভাসাই।

কারণ তারপরও এভাবে শুভেচ্ছা ধন্যবাদ বাহবা কিংবা মিডিয়ায় প্রশংসা পাওয়ার জন্য স্বাভাবিক আচরণটা স্বাভাবিকভাবেই করুক। তিনি লিখেছেন, শাহনাজের বাইক ফিরে পাওয়ার জন্য যদি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী প্রশংসা পেতে পারে তবে আমার চুরি হওয়া বাইকটার জন্য জিডি মামলা

 

করলাম। কোন প্রতিকার নেই। এটার জন্য কি বলবেন??? শাহনাজের বাইক যদি কয়েক ঘন্টা ব্যবধানে বের হয়ে আসতে পারে আমারটা কেন আজ ২ মাসের বেশি সময় পরও খোঁজ মিলে না!! নাকি ভাইরাল হওয়ার অপেক্ষায় আছেন। আমার এই চুরি যাওয়ার ঘটনা ভাইরাল হবে না বা কেউ দায়িত্ব

নিয়ে নতুন উপহারও দিবে না। কারন আমার বাইক উদ্ধার হলে হয়তো এতোটা কাভারেজ আপনারা পাবেন না। তারপরও স্বপ্ন দেখি আশায় আছি কোন একদিন হয়তো ফিরে পাবো। কোন ভাবে হয়তো আপনাদের নজরে আসবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি থেকে ২০ মিনিটে বাইক উধাও ঢাকা

 

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) এলাকায় ফের বাইক চুরির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সাবেক শিক্ষার্থী টিএসসি ভবনের সামনের খোলা স্থানে বাইক রেখে ভবনটিতে প্রবেশ করেন। এর ২০ মিনিট পর ফিরে এসে দেখেন তার বাইক নেই। নানাভাবে খুঁজেও তিনি

বাইকটি উদ্ধার করতে পারেননি। বাইক হারানো ব্যক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী তারেক হাসান শিমুল। তিনি দর্শন বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র ছিলেন। বর্তমানে সময় টেলিভেশনে স্পোর্টস রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তিনি এ বিষয়ে বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় একটি

 

সাধারণ ডায়েরী করেছেন। ডায়রি নম্বর ১১৭। আর চুরি হওয়া বাইকটির নিবন্ধন নম্বর ঢাকা মেট্রো-২৭-৪১০০। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি।

পুলিশের সাথে সমন্বয় করে আমরা গোপন সিসিটিভি ফুটেজ দেখে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেব। এর আগেও ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র থেকে বাইক চুরির ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনাগুলোতেও চুরি হওয়া বাইক উদ্ধার কিংবা দোষীদের এখন পর্যন্ত সনাক্ত করা যায়নি। এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

read more
অন্যান্য

টিআইবির গুরুতর অভিযোগ: যা করতে পারে নির্বাচন কমিশন

14-3

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রক্রিয়া নিয়ে গুরুতর অভিযোগ তুলেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ৷ তারা ৫০টি আসন নিয়ে গবেষণা করে ৩৩টিতে ভোটের আগের রাতে ব্যালট পেপারে সিল দেয়ার অভিযোগ পেয়েছে বলে দাবি করেছে৷

 

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ২৯৯টি আসনের মধ্যে ৫০টি আসন নিয়ে গবেষণা শুরু করেছে৷ দৈব চয়নের ভিত্তিতে ওই ৫০টি আসন বাছাই করে তারা৷ তারই প্রাথমিক ফলাফল উপস্থাপন করেছে মঙ্গলবার৷ ‘একাদশ সংসদ নির্বাচন

 

প্রক্রিয়া’ শীর্ষক গবেষণার প্রাথমিক ফলাফলে টিআইবি বলছে, ৫০টি আসনের মধ্যে ৪৭টিতেই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় কোনো- না-কোনো ধরনের অনিময়ম পাওয়া গেছে৷ এর মধ্যে গুরুতর অনিয়মগুলো হলো : ১. ভোটের আগের রাতে ৩৩টি আসনে ব্যালট পেপারে সিল মারা ২. জাল ভোট ৪১টি আসনে

৩. ভোট শুরুর আগেই ব্যালটবাক্স ভরে রাখা হয়েছে ২০টি আসনে ৪. বুথ দখল করে প্রকাশ্যে সিল ৩০টি আসনে ৫. আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নীরব ভূমিকা ৪২ আসনে ৬. ভোটারদের হুমকি দিয়ে তাড়ানো বা ভোটদানে বাধা ২১ টি আসনে ৭. নির্দিষ্ট মার্কায় ভোট দিতে বাধ্য করা হয়েছে ২৬টি

 

আসনে ৮. ব্যালট পেপার আগেই শেষ হয়ে যায় ২২টি আসনে ৯. প্রতিপক্ষের পোলিং এজেন্টকে ঢুকতে দেয়া হয়নি ২৯টি আসনে৷ টিআইবি ২৯৯ আসনের মধ্যে দৈবচয়নের ভিত্তিতে ৫০টি আসনে গবেষণার যে তথ্য দিয়েছে, তাতে গড়ে ৯৪ শতাংশ আসনে নির্বাচনি অনিয়ম হয়েছে৷ জাল ভোট

পড়েছে ৮২ শতাংশ আসনে৷ নির্বাচনের আগের রাতে ব্যালটবাক্সে সিল মারা হয়েছে ৬৬ শতাংশ আসনে৷ টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘নির্বাচন বৈধ, না অবৈধ সেটা নিয়ে আমরা কোনো গবেষণা করিনি৷ আমরা নির্বাচনপ্রক্রিয়া নিয়ে গবেষণা

 

করেছি৷ আমাদের কাছে প্রতীয়মান হয়েছে নির্বাচনের এই ধারা কোনোভাবেই অব্যাহত থাকতে পারে না৷ এটা অব্যাহত থাকলে ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র সুদূর পরাহত হয়ে উঠবে৷ এ কারণেই আমরা কিছু সুপারিশ করেছি৷ আশা করছি সেগুলো বিবেচনায় নেয়া হবে৷” টিআইবি যে ধরনের

নির্বাচনপ্রক্রিয়ার চিত্র তুলে এনেছে, তার মাধ্যমে গঠিত একটি সরকার চলতে পারে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘সেটা আমরা বলতে পারব না৷ এ নিয়ে আমাদের মন্তব্য করাও ঠিক হবে না৷ বিরোধীপক্ষ আইনি প্রক্রিয়ার আশ্রয় নিতে পারে৷ তাদের কেউ কেউ আদালতে যাওয়ারও

 

কথা বলেছে৷ নির্বাচন কমিশন দেখতে পারে৷ এটা আমাদের এখতিয়ারবহির্ভূত৷” এরইমধ্যে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম টিআইবির এই গবেষণা প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যা করেছেন৷ তিনি মঙ্গলবারই সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘‘প্রতিবেদনটি পূর্বনির্ধারিত ও মনগড়া৷ এটা কোনো গবেষণা

নয়৷ গবেষণায় যেসব পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়, তা এখানে প্রয়োগ করা হয়নি৷ এই প্রতিবেদন আমাদের দেয়া হয়নি৷ এটা আমরা আমলেও নিচ্ছি না৷” তিনি আরো বলেন, ‘‘টিআইবি বাছাই করা প্রার্থীদের কাছ থেকে তথ্য নিয়েছে৷ জামায়াতের প্রার্থীদের কাছ থেকে তথ্য নিলে গবেষণা প্রতিবেদন

 

একরকম হবে আর আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের কাছ নিলে তা আরেক রকম হবে৷ এই গবেষণায় টিআইবির বাছাই করা প্রার্থী কারা, সেটা স্পষ্ট নয়৷” আর বুধবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘‘টিআইবি’র অভিযোগ অলীক

রহস্যময় কাহিনি৷ টিআইবিকে বলবো ‘গল্প খাওয়াচ্ছেন, অনেক অবিশ্বাস্য রূপকথার কাহিনি সাজাচ্ছেন- নির্বাচন নিরপেক্ষ হয়নি৷ স্বচ্ছ ব্যালটবক্স ব্যবহার করা হয়েছে৷ আপনাদের কোনো একজন প্রতিনিধি বা প্রতিপক্ষের এজেন্ট নির্বাচনি কেন্দ্রে কি এই নির্বাচনের স্বচ্ছতা চ্যালেঞ্জ করেছে?’

 

টিআইবি আসলে স্বচ্ছতার বিরুদ্ধে কথা বলছে৷” এর জবাবে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘‘নির্বাচন কমিশনার যা বলেছেন, তা তাঁর মন্তব্য৷ তাঁর অবস্থান৷ কিন্তু টিআআইবি’র গবেষণাপদ্ধতি নিয়ে যদি প্রশ্ন তোলেন, তাহলে বলবো, টিআইবি কোনো ভিত্তিহীন বা নিয়মনীতিহীন গবেষণা করে না৷

গবেষণায় আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত পদ্ধতি অবলম্বন করে৷ টিআইবি’র গবেষণার আন্তর্জাতিকমান স্বীকৃত৷ আর আমরা এরই মধ্যে আমাদের গবেষণা নির্বাচন কমিশনকে পাঠিয়ে দিয়েছি৷ তাঁরা তা দেখতে পারেন৷” টিআইবি’র এই গবেষণায় যে ফল পাওয়া গেছে, তার প্রেক্ষিতে সুশাসনের জন্য

 

নাগরিক সুজনের সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘টিআইবি’র এই প্রতিবেদনকে ‘ভুয়া’ বা ‘পূর্ব নির্ধারিত’ না বলে নির্বাচন কমিশনের এখন উচিত হবে এই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে তদন্ত করা৷ তদন্তের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়া৷ এ নিয়ে আগে নির্বাচন কমিশনের

সিদ্ধান্তের উদাহরণ আছে৷ একটা বিখ্যাত মামলা আছে৷ নূর হোসেন বনাম নজরুল ইসলাম৷ এই মামলায় সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ সুস্পষ্ট রায় দিয়েছে যে, যদি কোনো নির্বাচন নিয়ে অভিযোগ বা প্রশ্ন ওঠে, তাহলে নির্বাচন কমিশন তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে৷

তাদের নির্বাচন বাতিল করারও ক্ষমতা আছে৷” তিনি আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘যে অভিযোগ উঠেছে, তাতে মানুষের ভোটাধিকারই প্রশ্নবিদ্ধ৷ তাই নির্বাচন কমিশনকে সবার আগে তদন্তের উদ্যোগ নিতে হবে৷ তারপর অন্য ব্যবস্থা৷”

read more
অন্যান্য

প্রতিমন্ত্রীকে দেখে ‘ক্ষেপলেন’ এমপি রমেশ

11-3

নিজ এলাকায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমানকে দেখে খুশি হতে পারেননি ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক পানি সম্পদ মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন। তার অভিযোগ, না জানিয়ে এলাকায় গেছেন এনামুর। রমেশ বলেন, ‘আমার এলাকায় ঢুকেছেন।

 

আমি যদি ঢুকতে না দিতাম? এখানে আসার আগে আমাকে জানানোর দরকার ছিল।’ জবাবে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জেলা প্রশাসক ও মন্ত্রণালয় আপনাকে জানায়নি?’ এরপর তিন বিষয়টি হেসে উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন এবং সাবেক পানি সম্পদ মন্ত্রীর সঙ্গে কোলাকুলির প্রস্তুতি নেন।

 

কিন্তু রমেশ চন্দ্র সেন কোন আগ্রহ না দেখালে তিনি কোলাকুলি হতে নিবৃত হন। বুধবার ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় এ পরিস্থিতির উদ্ভব হয়। এ নিয়ে প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন। জেলা

প্রশাসক কে এম কামরুজ্জামান সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় রমেশ চন্দ্র সেন ছাড়াও বিশেষ অতিথি ছিলেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমান (এখানো শপথ নেননি), ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক

 

আবু সৈয়দ মোহাম্মদ হাসিম, ঠাকুরগাঁও জেলা পরিষদের প্রশাসক সাদেক কুরাইশি। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঠাকুরগাঁওয়ে শীতের তীব্রতা, মন্ত্রণালয় হতে প্রাপ্ত শীতবস্ত্র ও নগদ টাকা এবং শীত বস্ত্র বিতরণে জেলা প্রশাসনের কর্মকা-, পেপার কাটিং ইত্যাদি তথ্য উপস্থাপন করেন

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শীলাব্রত কর্মকার। সভায় ভিজিডি, ভিজিএফ, জিআর চাল, কাবিখা, কাবিটা ইত্যাদি প্রকল্পের তথ্য মাল্টিমিডিয়ায় প্রকাশ না করায় ত্রাণ সচিব অসন্তোষ প্রকাশ করেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) নুর কুতুবুল আলমকেও তার দায়িত্ব ঠিকমতো পালন না করায়

 

ভর্ৎসনা করেন। বলেন, ‘তুমি এডিসি জেনারেল হিসেবে কখনো গোডাউনে গেছ?’ জেলা ত্রাণ বিভাগের গুদামে কতটি ঢেউটিন জমা আছে এবং সর্বশেষ কবে নাগাদ পরিদর্শন করা হয়েছে এবং ডিসি সাহেব পরিদর্শন করেছেন কিনা তাও জানতে চান সচিব। জবাবে জেলা প্রশাসক কামরুজ্জামান সেলিম

বলেন, ‘আমি আসার পর একবার মাত্র গেছি। এ কথায় সচিব সন্তুষ্ট না হতে পারেননি। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের অর্থে বেশ কিছু প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ২ ডিসেম্বর বরাদ্দ দেওয়া হয়। ৩১ ডিসেম¦রের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নের কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত কেন বাস্তবায়ন করা সম্ভব

 

হয়নি, সে কথাও জানতে চান সচিব। প্রকল্পের নীতিমালা পড়েছেন কি না, পড়লে নীতিমালা বইয়ের মোড়ক কী রঙের ইত্যাদি প্রশ্নও এডিসি নুর কুতুবুল আলমের কাছে জানতে চান ত্রাণ সচিব।

জবাবে নুর কুতুবুল আলম একবার বইয়ের মোড়ক ‘মাল্টি কালার’ এবং পরক্ষণে সবুজ রঙের বলে উল্লেখ করেন। জবাব সঠিক না হওয়ায় অসন্তোষ জানান সচিব।

read more
অন্যান্য

ফখরুলকে পদত্যাগ করতে বললেন কাদের

7-2-818×400

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভরাডুবির জেরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের পদত্যাগ করা উচিত বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বুধবার (১৬ জানুয়ারি) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে

 

দক্ষিণ যুবলীগ আয়োজিত বর্ধিত সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনে বিএনপির শোচনীয় পরাজয়ের পর তাদের মুখে নির্বাচন নিয়ে কথা মানায় না।আওয়ামী লীগ নয়, বরং অভূতপূর্ব নির্বাচন যারা মানেন না তাদেরই ক্ষমা চাওয়া

 

উচিত। ‘নির্বাচনে কারচুপির কারণে ওবায়দুল কাদেরকে জাতীয় স্টেডিয়ামে গিয়ে ক্ষমা চাইতে হবে’ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, যে মহাসচিব ১০ বছরে ১০ মিনিটও আন্দোলন করতে পারেনি। নির্বাচনে

১০টিও আসন পায়নি। আন্দোলন ব্যর্থ, নির্বাচনেও ব্যর্থ লজ্জা থাকলে তার ( ফখরুল) এখনই পদত্যাগ করা উচিত। তিনি বলেন, জনগণ এ অভূতপূর্ব বিজয় যারা প্রত্যাখ্যান করছে তাদের জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত। নির্বাচন স্বচ্ছ ও সুন্দর হয়েছে। নির্বাচনের দিন বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের কোনো

 

এজেন্ট কী নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রতিবাদ করেছে? নির্বাচন নিয়ে টিআইবির প্রতিবেদন বিষয়ে কাদের বলেন, নির্বাচন স্বচ্ছ হয়নি বলে রুপকথার গল্প সাজিয়েছে সংস্থাটি। নির্বাচনের এতদিন পর অবিশ্বাস্য রুপকথার গল্পের উদ্দেশ্য কী তা জানে না আওয়ামী লীগ। টিআইবির এমন মিথ্যা

বিশ্লেষণের জবাব জনগণই দেবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাঈল চৌধুরী সম্রাটের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ প্রমুখ।

বিডি২৪লাইভ

read more
অন্যান্য

টিআইবির প্রতিবেদন নিয়ে এবার যা বললেন ওবায়দুল কাদের

Untitled-6-copy-45-728×400

আওয়ামী লীগ নয়, বরং অভূতপূর্ব নির্বাচন যারা মানেন না তাদেরই ক্ষমা চাওয়া উচিৎ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আর নির্বাচন নিয়ে টিআইবির প্রতিবেদন বিষয়ে বলেন, নির্বাচন স্বচ্ছ হয়নি বলে রুপকথার গল্প সাজিয়েছে সংস্থাটি।

 

বুধবার সকালে বঙ্গব্ন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনে বিএনপির শোচনীয় পরাজয়ের পর তাদের মুখে নির্বাচন নিয়ে কথা মানায় না। লজ্জা থাকলে বিএনপি মহাসচিবের পদত্যাগ করা উচিৎ বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

 

টিআইবির প্রতিবেদনের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনের এতদিন পর অবিশ্বাস্য রুপকথার গল্পের উদ্দেশ্য কী তা জানে না আওয়ামী লীগ। টিআইবির এমন মিথ্যা বিশ্লেষণের জবাব জনগণই দেবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

read more
অন্যান্য

‘মদ আমি খাইনি, খেয়েছিল ট্রাকচালক’

RQJlsD_1547638628

কিছুদিন আগে সড়ক দুর্ঘটনায় মারাত্মকভাবে আহত হন অভিনেত্রী অহনা। এতদিন পার হয়ে গেলেও এখনও শারীরিক কোন উন্নতি নেই বরং অবস্থা আরও খারাপের দিকে। ট্রাকচালকের নির্মমতায় গুরুতর আহত হওয়ার পর অহনাকে ভর্তি করা হয়েছিল রাজধানীর উত্তরার ক্রিসেন্ট হাসপাতালে।

 

সেখানে অবস্থার অবনতি হলে সোমবার (১৪ জানুয়ারি) চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখানেই চিকিৎসারত অবস্থায় রয়েছেন অহনা। যে গাড়িতে আহত হয়েছেন সে গাড়ির চালক ও তার সহকারী মদ খেয়ে ট্র্যাক চালাচ্ছিলেন বলে দাবি করেন অহনা। অহনা

 

বলেন, ‘ট্রাকচালক ছিল মাদকাসক্ত। অথচ অনেকে মন্তব্য করেছেন আমি নাকি মদ খেয়েছিলাম! আসল সত্যিটা হচ্ছে, মদ আমি খাইনি। মদ খেয়েছিল ট্রাক চালক।’ জানা যায়, চালক ও তার সহকারীর নির্মমতায় গুরুতর আহত অভিনেত্রী অহনা ভালো নেই। তার পুরো শরীরের রক্তে জীবাণু ছড়িয়ে

পড়েছে। এমআরই করা হয়েছে। অহনা গণমাধ্যমে জানান, আমি খুব অসুস্থ। পিঠে অনেক ব্যথা। ব্যথা কিছুতেই কমেছেই না। রক্তে জীবাণু ছড়িয়ে গেছে। এমআরআই করা হয়েছে। রিপোর্ট আসলে বোঝা যাবে কী হয়েছে। এর আগে চিকিৎসকের বরাত দিয়ে অহনার খালাতো বোন লিজা ইয়াসমীন

 

মিতু জানিয়েছিলেন, অহনার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। তার পুরো শরীরে রক্তে জীবাণু ছড়িয়ে পড়েছে। অবস্থার উন্নতি নেই। আপনারা সবাই তার জন্য দোয়া করবেন। গত ৮ জানুয়ারি রাতে শুটিং শেষ করে অহনা তার খালাতো বোন মিতুকে সঙ্গে নিয়ে রাজধানীর উত্তরায় নিজ বাসায় ফেরার

পথে উত্তরার কাবাব ফ্যাক্টরি থেকে কিছুটা সামনে সাত নম্বর সেক্টরের পূর্ব মাথায় একটি বেপরোয়া গতির পাথর বোঝাই ট্রাক সজোরে ধাক্কা দিয়ে অহনার ব্যক্তিগত গাড়ির ক্ষতি করে। অহনা গাড়ি থেকে নেমে ট্রাকচালককে নামতে বলেন। এ সময় ইচ্ছাকৃতভাবে আবার অহনার গাড়িকে সজোরে

 

ধাক্কা দেয় চালক। গাড়ি থেকে নেমে অহনা প্রতিবাদ করে ট্রাকচালককে নামতে বললে তিনি অহনার সঙ্গে তর্কাতর্কি করেন। এ সময় অহনা নিজেই ট্রাকের দরজা দিয়ে উঠে চালককে নামাতে যান। কিন্তু চালক কথা না শুনে অহনাকে দরজায় ঝুলন্ত অবস্থায় ট্রাক ছেড়ে দেন। ট্রাকটি অহনাকে ঝুলন্ত

অবস্থায় নিয়ে উত্তরার ১২ নম্বর সেক্টরে পৌঁছালে স্থানীয়দের বাধায় ট্রাকচালক সজোরে ব্রেক করলে ছিটকে পড়ে আহত হন অহনা। অহনা কোমরের

 

হাড়ে ও পিঠে প্রচণ্ড চোট পান। তাকে উদ্ধার করে মিতু হাসপাতালে ভর্তি করান। ফেসবুকে ওই ঘটনার ভিডিও শুনে কেউ কেউ বলেছেন, অহনা বাজে ব্যবহার করেছে। ভিডিওটা ছিল খন্ডিত। ভিডিওতে যা দেখেছেন সেটা দুর্ঘটনার শুরুর সময় মাত্র। পুরো ঘটনা না জেনে ফেসবুকে মন্তব্য করা কি

ঠিক হল? ঘটনার বিবরণ দিয়ে অহনা বলেন, আমি যদি ওই সময় ট্রাকে না উঠি তাহলে তো ট্রাক আমার উপর দিয়ে উঠে যায়। আমি ট্রাকে সাধে ঝুলিনি। সঙ্গে থাকা মিতু (খালাতো বোন) ভিডিও বন্ধ করে পুলিশকে কল করতে বলি। এমতাবস্থায ট্রাকচালকের চেহারা বদলে গেল। তখন সে

 

বলেছিল, ‘পুলিশ ডাকছে, দেখাচ্ছি।’ এই বলে ট্রাক চালানো শুরু করে। ওই সময় অহনাকে মেরে ফেলতে সচেষ্ট হন চালক ও চালকের সহযোগী। বিষয়টি জানিয়ে অহনা বলেন, আমি ট্রাকে ঝুলন্ত অবস্থায়, চালকের সহকারী চালককে বলেছিল, এটা নায়িকা! এটাকে যদি বাঁচায় দেন আমরা ফাইসা

যাব। এই ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর একজন মন্তব্য করেন- নাটক করে তো এজন্য এ রকম হয়েছে। মরে গেলে ভালো হতো। এ বিষয়ে অহনা বলেন, আজকে আমার জায়গায় যদি তার (মন্তব্যকারী) মা, বোন ও প্রেমিকা থাকতেন তাহলে কি তিনি এরকম বলতে

 

পারতেন। যোগ করে আরও বলেন, আমি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি। পাপ-পূণ্যের বিচার আল্লাহ করবেন। বেঁচে থাকলে আমার সঙ্গে একই ঘটনা যদি আবারও ঘটে আমি প্রতিবাদ করব। অহনাকে আহত করার ঘটনায় ৯ জানুয়ারি উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেন অহনার খালাতো বোন লিজা

 

ইয়াসমীন মিতু। গত রোববার সকালে ঢাকার সাভার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ট্রাকচালক সুমন মিয়া ও তার সহকারী রোহানকে গ্রেফতার করে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ। এ ঘটনায় মামলায় গ্রেফতার ট্রাকচালক সুমন মিয়া আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন।

read more
অন্যান্য

স্কুটিটি উদ্ধারের পর শাহনাজের সন্তানদের উপহার দিল তেজগাঁও পুলিশ

fgg-696×379

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচিত রাইড শেয়ারিং অ্যাপ উবারচালক সেই সংগ্রামী নারী শাহনাজ আক্তারের ছিনতাই হওয়া স্কুটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৬ জানুয়ারি) সকালে নারায়ণগঞ্জের রঘুনাথপুর থেকে স্কুটিটি উদ্ধার করা হয়। স্কুটিটি উদ্ধার করার পর বুধবার দুপুরে ঢাকা

 

মহানগর পুলিশের তেজগাঁও ডিসি অফিসে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে শাহনাজ আক্তারকে তার স্কুটিটি হস্তান্তর করা হয়। এসময় ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, গতকাল শাহনাজের মামলার পর তদন্ত ও অভিযানের

 

সমন্বয় করেন তেজগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন। এর আগে, মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) বিকাল ৩টার দিকে রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ থেকে শাহনাজের স্কুটিটি (ঢাকা মেট্রো- হ ৫৫২৯৪৭) ছিনতাই হয়। এ সংক্রান্ত শেরেবাংলা নগর থানায় একটি

মামলা (নং- ১৪) দায়ের করা হয়। এদিকে, দুদিন ধরে রাইড শেয়ার করতে না পারার কারণে তেজগাঁও ডিভিশনের পক্ষ থেকে তার বাচ্চাদের জন্য ১০ হাজার টাকা উপহার দেয়া হয়। শাহনাজ আক্তারের দুই মেয়ে রয়েছে।বড় মেয়ে নবম ও ছোট মেয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে।

read more
1 2 3 4 5 89
Page 3 of 89