close

রহস্যময় ঘটনা

রহস্যময় ঘটনা

ঘুমন্ত স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে দিয়ে পালিয়ে গেলেন স্ত্রী!

Untitled-1 copy

 

ঘুমন্ত স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে দিয়ে পালিয়ে গেলেন স্ত্রী!

দ্বিতীয় বিবাহ করায় জাকির হোসেন (৩২) নামের এক যুবকের গোপনাঙ্গ কেটে দিয়েছে প্রথম স্ত্রী।

সোমবার (২ অক্টোবর) সকালে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার দিয়ারধানগড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর অবস্থায় জাকিরকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ঘটনার পর থেকে স্ত্রী পলাতক রয়েছেন।

 

 

জানা যায়, মানিকগঞ্জের আব্দুল কাদের শেখের ছেলে জাকির হোসেন প্রথম স্ত্রী মিতা খাতুন থাকাবস্থায় গোপনে দ্বিতীয় বিবাহ করে। দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় বসবাস করাবস্থায় বিষয়টি জানাজানি হয়।

 

 

এ অবস্থায় প্রথম স্ত্রী মিতা খাতুন স্বামী জাকিরকে নিয়ে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার দিয়ারধানগড়া দুলাল শেখের বাড়ীতে ভাড়া হিসেবে বসবাসকারী ছোটবোন স্বপ্নার বাসায় বেড়াতে আসে।

 

 

রাতে দ্বিতীয় বিয়ের বিষয় নিয়ে মিতার সাথে স্বামীর কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ভোর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় মিতা ব্লেড দিয়ে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

 

 

সিরাজগঞ্জ সদর থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল কাদের জানান, ঘটনা শোনার পর হাসপাতালে ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে যাওয়া হয়েছিল। তবে কেউ অভিযোগ দেয়নি।

read more
রহস্যময় ঘটনা

আল্লাহর লিলা বুঝতে খুব কষ্টকর বেপার তাই বন্ধুরা এটাই তার অপমান. …কেমন রিসার্চ করলেন জানাবেন

Untitled-1 copy

 

আল্লাহর লিলা বুঝতে খুব কষ্টকর বেপার তাই বন্ধুরা এটাই তার অপমান. …কেমন রিসার্চ করলেন জানাবেন..আল্লাহ লিলা খেলা কেউ বুজে না

 

'My Face Melted' – China's Elephant Man. Body Bizarre on TLC

Good: Heart-melting. Bad: Face-melting. Great: This Thursday's episode of Body Bizarre, 9pm on TLC UK, which combines both.Hear the gobsmacking story of China’s "Elephant Man" Huang Chuncai, who has the worst case of Neurofibromatosis ever recorded, which has caused huge tumours to grow all over his head, making it look as though he is melting. But there is hope for the future…Body Bizarre. 9pm, every Thursday, only on TLC UK. Watch similar television programmes for free online on Barcroft TV – subscribe to our YouTube channel: YouTube.com/BarcroftMedia#Documentary #Docs #BodyBizarre #Tumour #Shocking #RealLife #China #ElephantMan #TLC #TLCUK #TV #Television

Posted by Barcroft TV on Mittwoch, 15. Oktober 2014

read more
রহস্যময় ঘটনা

এ কেমন সন্তান! ঘাবড়ে গেলেন মা নিজেই……><><

Untitled-1 copy

 

এ কেমন সন্তান! ঘাবড়ে গেলেন মা নিজেই

এ কেমন সন্তান! ঘাবড়ে গেলেন মা নিজেইসন্তানকে দেখতে ভিন গ্রহের প্রাণীর মত। তাই তাঁকে বুকের দুধ খাওয়াতেও রাজি হচ্ছেন না মা। বিহারের কাটিহারের ঘটনা। চিকিৎসাবিজ্ঞান বলছে, হারলেকুইন ইকথিওসিস নামে একধরনের জিনগত সমস্যা রয়েছে। বিরল এই সমস্যার কারণে কারও ত্বক দেখে মনে হতে পারে প্লাস্টিকের তৈরি। কারও বা ত্বক ফেটে যায়। কারও আবার অঙ্গ বিকৃতিও ঘটে।সোমবার রাতে ওই শিশুপুত্রর জন্ম দেন চার সন্তানের মা বছর পঁয়ত্রিশের খালিদা বেগম। সন্তানকে প্রথমবার দেখেই চমকে যান ওই মহিলা। ছোট্ট মাথা, বিস্ফোরিত দুই চোখ, ত্বক যেন প্লাস্টিকের প্রলেপ  লাগানো। ছেলেকে প্রথমবার দেখেই ঘাবড়ে যান মা। সন্তানকে সরিয়ে নিয়ে যেতে বলেন তিনি।

খালিদা বলেন, “বাচ্চার শরীরের অনেক অংশই ঠিকঠাকভাবে বেড়ে ওঠেনি। জন্মের পর ওকে যখন প্রথমবার দেখি আমি তো ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। ও পুরোপুরি ভিন গ্রহের প্রাণীর মতো দেখতে। আমার খুব কষ্ট লেগেছিল দেখেই। নার্সকে বলি ওকে সরিয়ে নিয়ে যান।” তবে শিশুটির বাবার বিশ্বাস, তাঁদের সন্তান হিন্দু দেবতা মহাবীরের অবতার।

নুসরিত শাহিন


চিকিৎসকরা বলছেন, ৩০০,০০০ নবজাতকের মধ্যে একজন এই সমস্যায় হারলেকুইন ইকথিওসিসে আক্রান্ত হয়। এই জাতকের নিয়মিত ভাবে পরিচর্যা দরকার। বিশেষ করে ত্বকের যত্ন। ১৯৮৪ সালে নুসরিত ‘নেলি’ শাহিন নামে এক শিশুকন্যার জন্ম হয়েছিল।

রেকর্ড বলছে, হারলেকুইন ইকথিওসিসে আক্রান্ত প্রথম শিশু শাহিনই। ২০১৬ সাল পর্যন্ত পাওয়া খবরে ভাল আছেন তিনি। ২০১৬ সালে নাগপুরে এমনই এক শিশুর জন্ম হয়েছিল। যা ভারতে প্রথম। তবে দু’দিনের বেশি বাঁচানো যায়নি তাকে।

read more
রহস্যময় ঘটনা

২৫৬ বছর বাঁচলেন তিনি! মৃত্যুর আগে বলে গেলেন গোপন রহস্যের কথা………..

Untitled-1 copy

২৫৬ বছর বাঁচলেন তিনি! মৃত্যুর আগে বলে গেলেন গোপন রহস্যের কথা- আপনার জানামতে, এ গ্রহের সবচেয়ে দীর্ঘজীবী মানুষটির বয়স কত ছিল? ইতিহাস ঘাঁটলে কিছু তথ্য তো মিলবেই। কিন্তু লি চিং ইউয়েনের নাম কি কখনো শুনেছেন?

 

অবিশ্বাস্য ঠেকবে যদি বলা হয়, এই মানুষটি ২৫৬ বছর বেঁচেছিলেন! আর এটা কোনো লোককথা বা কিংবদন্তি নয়। ১৯৩০ সালে নিউ ইয়র্ক টাইমস-এ একটি নিবন্ধ প্রকাশিত হয়। সেখানে বলা হয়, চেংদু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর উ চুর-চেই গবেষণা করছিলেন চীনের রাজাদের পরিচালিত সরকারব্যবস্থার ইতিহাস নিয়ে। নথি-পত্রে মেলে যে, ১৮২৭ সালে লি চিং ইউয়েনকে ১৫০তম জন্মবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন প্রফেসর। পরবর্তিতে তিনি ১৮৭৭ সালে লিকে ২০০তম জন্মবার্ষিকীর শুভেচ্ছাও জানান।

১৯২৮ সালে নিউ ইয়র্ক টাইমস-এ কর্মরত এ সাংবাদিক লিখেছেন, বেশ কয়েক জন বয়স্ক ব্যক্তি লি এর প্রতিবেশী ছিলেন। তারা নিজেরাই বলেছেন যে, তাদের দাদারাই লি-কে খুব চিনতেন। তখন নাকি রীতিমতো প্রাপ্তবয়স্ক এক মানুষ লি। এ খবর সবাই জানেন যে, বিস্ময়কর লি চিং মাত্র ১০ বছর বয়স থেকে হার্বাল বিজ্ঞানে হাত পাকাতে শুরু করেন। সেই উঁচু দুর্গম পাহাড়ে চলে যেতেন হার্বাল উদ্ভিদের খোঁজে।

এগুলো নিয়ে গবেষণা করেই তিনি দীর্ঘায়ু লাভের গোপন মন্ত্র আবিষ্কার করেছিলেন। প্রায় ৪০ বছর তিনি কেবল হার্বাল উদ্ভিদে প্রস্তুত খাবার খেয়েই বেঁচে ছিলেন। তার খাদ্য তালিকায় ছিল লিংঝি, জোজি বেরি, বুনো জিনসেন, শু উ আর গোটু কোলার মতো হার্বাল। ১৭৪৯ সালে বয়স তার ৭১। চাইনিজ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন মার্শাল আর্টস এর শিক্ষক হিসাবে।

বলা হয়, সেখানে তিনি দারুণ জনপ্রিয় এক ব্যক্তিত্ব হয়ে ওঠেন। বিয়ে করেছিলেন ২৩ বার। প্রায় ২০০ সন্তানের জনক তিনি। তার জন্মস্থানে অনেক গল্প প্রচলিত রয়েছে। অনেকেই বলেন, লি নাকি সেই ছোটকাল থেকেই খুব দ্রুত পড়তে ও লিখতে শেখেন। দশম জন্মদিনের আগেই ভ্রমণ করেছিলেন কানসু, শানসি, তিব্বত, আনাম, সিয়াম আর মাঞ্চুরিয়া।

এসব অঞ্চল চষে বেড়িয়েছেন হার্বাল উদ্ভিদ সংগ্রহে। জীবনের প্রথম শত বছর পর্যন্ত তিনি নাকি হার্বালের গবেষণা নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন। তিনি একা নন! লি এর এক শিষ্য তো আরো মারাত্মক তথ্য দিচ্ছেন। ৫০০ বছর পর্যন্ত বেঁচে ছিলেন এমন মানুষের সঙ্গে দেখা হওয়ার দাবিও তিনি করছেন। সেই মানুষটি তাকে কুইগং পদ্ধতির ব্যায়াম আর খাবার নিয়ে অনেক পরামর্শ দিয়েছিলেন।

তবে এই দাবি কতটা সত্য তা নিয়ে মাথা না ঘামালেও চলবে। লি চুং এর বিষয়টি মানুষ দারুণ বিশ্বাস করে। এই দীর্ঘ জীবনের রহস্য কী? এক সময় লি’র কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল তার দীর্ঘায়ুর রহস্য সম্পর্কে। তিনি বলেছিলেন, হৃদযন্ত্রটাকে শান্ত রাখুন। একেবারে

কচ্ছপের মতো বসে থাকুন, কবুতরের মতো হাঁটুন আর কুকুরের মতো ঘুমান। এর সঙ্গে দেহ-মন-প্রাণের অভ্যন্তরের শান্তির জন্য তিনি শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত কিছু কৌশলের চর্চা চালাতেন। এসব করেই তিনি শিখেছিলেন দীর্ঘ জীবন লাভের সত্যিকার কৌশল। বিশ্বাস করা সত্যিই কঠিন পশ্চিমে মানুষের গড় জীবনকাল ৭০-৮৫ বছরের মধ্যেই থাকে। কেউ শত বছর বেঁচে আছেন শুনলে বেশ অবাক লাগে।

কিন্তু কেউ একজন ২০০ বছরের বেশি জীবনকাল পার করেছেন শুনলে তা কি আর বিশ্বাস হয়? এমন দীর্ঘায়ুর কথা বিশ্বাস না হওয়ার কারণ কী হতে পারে? মানুষের জীবনের নানা টেনশন, মানসিক চাপ, পরিবেশ দূষণ- সব মিলিয়ে আয়ু তো দিন দিন কমে যাচ্ছে। মানুষ নিয়মিত শরীরচর্চাও করে না। খাদ্য বাছাইয়ের ক্ষেত্রেও তারা সচেতন নয়। মানুষ হন্যে হয়ে পাহাড় চষে হার্বাল উদ্ভিদ বের করে আনে না।

এসব খেয়ে বেঁচে থাকার চেষ্টাও করে না। শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত বিশেষ কৌশলের চর্চাও করে না। তবুও লি চিং কোনো মিথলজি নয় বলেই শক্তপোক্ত প্রমাণ রয়েছে বলে দাবি করা হয়। নথি-পত্র ঘাঁটলেও তার আয়ুষ্কাল সম্পর্কে ধারণা মেলে। সত্যিই এই মানুষটি ২৫৬ বছর বেঁচেছিলেন!

read more
রহস্যময় ঘটনা

বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)

Untitled-1 copy

 

বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)

 

ভিডিও নিচে আসবে একটু অপেক্ষা করুন <<

 

 

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

আরোও পড়ূনঃ-

 

জেনে নিন যে ৩টি উপায়ে খাঁটি সোনা চিনতে পারবেন ??

 

বিয়ে, জন্মদিন কিংবা যেকোনো উৎসবে নিজেকে সাজাতে নারীদের প্রথম পছন্দ হলো সোনার গহনা। তবে শুধুমাত্র নারীর অঙ্গশোভা বাড়াতে নয়- আভিজাত্য এবং সম্পদ সংরক্ষণে যুগ যুগ ধরেই প্রাধান্য পায় সোনা। কিন্তু স্যাকরার দোকানে গিয়ে খাঁটি স্বর্ণ চিনতে না পারায় অনেক সময় ঠকতে হচ্ছে। আসলে সাধারণের পক্ষে খাঁটি স্বর্ণ চেনা কিন্তু সহজ কথা নয়।

জেনে নিন খাঁটি সোনা চেনার উপায়-

 

 

 

১। সোনা কিনুন ২৪ ক্যারটের– ২৪ ক্যারট সোনাই আসল খাঁটি সোনা। ২৪ ক্যারট সোনা মানে ৯৯.৯% শতাংশ খাঁটি সোনা। কিন্তু দোকানে সাধারণত ২৪ ক্যারট সোনা দিয়ে গয়না তৈরি হয় না। তাতে সেই সোনার অলঙ্কার বড্ড নরম হয়ে যাবে। তাই দোকানে সাধারণত ২২ ক্যারট সোনা দিয়েই অলঙ্কার তৈরি করা হয়। আপনি সেদিকটা খতিয়ে দেখে নেবেন যাতে ২২ ক্যারট সোনা দেওয়া হয়। ২২ ক্যারট সোনা মানে ৯১.৬% শতাংশ সোনা।

২। BIS চিহ্ন দেখে সোনা কিনুন – সাধারণত, সোনা কেনার আগে হলমার্ক দেখেই মানুষ কেনেন। এটাই নিয়ম খাঁটি সোনা চেনার ক্ষেত্রে। কিন্তু এছাড়াও BIS চিহ্ন দেখে সোনা কিনুন। তাতে আপনি নিশ্চিত থাকবেন যে, আপনার সোনা সত্যিই খাঁটি।

৩। ফ্লুরোসেন্স মেশিনে এক্স রে করিয়ে নিন। যদিও এই পদ্ধতিতে সোনা যাচাই করে নেওয়াটা একটু কঠিন। কারণ সব জায়গাতে সচরাচর এমন সূযোগ আপনি নাও পেতে পারেন। তবুও একবার চেষ্টা করে নেবেন, যাতে এই পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে আপনি আপনার সোনাকে যাচাই করে নিতে পারেন।

read more
রহস্যময় ঘটনা

বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)

Untitled-1 copy

 

 

বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)বিশ্বের ভয়ংকর ৫টি সমুদ্র সৈকত যেখানে যাওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না (দেখুন ভিডিও)

 

ভিডিও নিচে আসবে একটু অপেক্ষা করুন <<

 

 

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

আরোও পড়ূনঃ-

জেনে নিন যে ৩টি উপায়ে খাঁটি সোনা চিনতে পারবেন ??

বিয়ে, জন্মদিন কিংবা যেকোনো উৎসবে নিজেকে সাজাতে নারীদের প্রথম পছন্দ হলো সোনার গহনা। তবে শুধুমাত্র নারীর অঙ্গশোভা বাড়াতে নয়- আভিজাত্য এবং সম্পদ সংরক্ষণে যুগ যুগ ধরেই প্রাধান্য পায় সোনা। কিন্তু স্যাকরার দোকানে গিয়ে খাঁটি স্বর্ণ চিনতে না পারায় অনেক সময় ঠকতে হচ্ছে। আসলে সাধারণের পক্ষে খাঁটি স্বর্ণ চেনা কিন্তু সহজ কথা নয়।

জেনে নিন খাঁটি সোনা চেনার উপায়-

 

১। সোনা কিনুন ২৪ ক্যারটের– ২৪ ক্যারট সোনাই আসল খাঁটি সোনা। ২৪ ক্যারট সোনা মানে ৯৯.৯% শতাংশ খাঁটি সোনা। কিন্তু দোকানে সাধারণত ২৪ ক্যারট সোনা দিয়ে গয়না তৈরি হয় না। তাতে সেই সোনার অলঙ্কার বড্ড নরম হয়ে যাবে। তাই দোকানে সাধারণত ২২ ক্যারট সোনা দিয়েই অলঙ্কার তৈরি করা হয়। আপনি সেদিকটা খতিয়ে দেখে নেবেন যাতে ২২ ক্যারট সোনা দেওয়া হয়। ২২ ক্যারট সোনা মানে ৯১.৬% শতাংশ সোনা।

২। BIS চিহ্ন দেখে সোনা কিনুন – সাধারণত, সোনা কেনার আগে হলমার্ক দেখেই মানুষ কেনেন। এটাই নিয়ম খাঁটি সোনা চেনার ক্ষেত্রে। কিন্তু এছাড়াও BIS চিহ্ন দেখে সোনা কিনুন। তাতে আপনি নিশ্চিত থাকবেন যে, আপনার সোনা সত্যিই খাঁটি।

৩। ফ্লুরোসেন্স মেশিনে এক্স রে করিয়ে নিন। যদিও এই পদ্ধতিতে সোনা যাচাই করে নেওয়াটা একটু কঠিন। কারণ সব জায়গাতে সচরাচর এমন সূযোগ আপনি নাও পেতে পারেন। তবুও একবার চেষ্টা করে নেবেন, যাতে এই পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে আপনি আপনার সোনাকে যাচাই করে নিতে পারেন।

read more
রহস্যময় ঘটনা

মিরসরাইয়ে এক পাহাড়ে রহস্যময় বিশাল সুরঙ্গের সন্ধান – আতঙ্কে এলাকাবাসী

Capture

 

 

মিরসরাইয়ের দুর্গম পাহাড়ে সন্ধান মিলেছে একটি সুড়ঙ্গের। প্রায় ৪০ ফুট দৈর্ঘ্যের এ সুড়ঙ্গটি নির্জন পাহাড়ে বিশেষ কায়দায় খনন করা হয়েছে।

এ নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। শত শত উত্সুক লোক করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ অলিনগর গ্রামের ঢুল্লাছরি এলাকায় সন্ধান পাওয়া সুড়ঙ্গটি দেখতে ভিড় করছে। মঙ্গলবার বিকালে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ ও সরকারের দুইটি গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই, ডিজিএফআই) কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

 

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কদিন আগেও অলিনগর বনবিটের আওতায় থাকা ঢুল্লাছরির পাহাড়গুলো জঙ্গলে আবৃত ছিল। সম্প্রতি সরকারের বনবিভাগ নতুন বনায়নের জন্যে পরিস্কারের কাজ শুরু করলে এখানকার পাহাড়গুলো ন্যাড়া হয়ে পড়ে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর জঙ্গল পরিস্কারের কাজ করতে গিয়ে বিশেষ কায়দায় খোঁড়া সুড়ঙ্গটি দেখতে পান স্থানীয় দক্ষিণ অলিনগর গ্রামের বাসিন্দা মঞ্জুর আলম। গত ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে মঞ্জুর তার বন্ধুদের নিয়ে পুনরায় দেখতে যান ওই সুড়ঙ্গ। পরবর্তীতে ২৬ সেপ্টেম্বর ফেসবুকে সুড়ঙ্গের ছবি দিলে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে সাংবাদিকসহ স্থানীয় লোকজন সুড়ঙ্গটি দেখতে ভিড় জমান।

 

সুড়ঙ্গের ভেতর ঘুরে আসা নেছার আহমদ বলেন, সুড়ঙ্গের ভেতর আরো দু’টি সুড়ঙ্গ দেখা গেছে। আমি সুড়ঙ্গে প্রবেশের সময় প্রায় ৮০ হাতের একটি পাহাড়ি লতা নিয়ে যাই। ৭০ হাত পর্যন্ত যাওয়ার পর আর ভেতরে যেতে পারিনি। ওখানে সুড়ঙ্গের মুখে মাটি দিয়ে ভরাট করে দেয়া হয়েছে। মাটিগুলো সরানো গেলে আরো ভেতরে যাওয়া সম্ভব হবে। সুড়ঙ্গের ভেতর অনায়াশে দু’জন হামাগুড়ি দিয়ে যেতে পারবে। সুড়ঙ্গের মুখ দিয়ে ১০-১৫ হাত ভেতরে যাওয়ার পর দু’পাশে আরো দুইটি সুড়ঙ্গ দেখা গেছে। সুড়ঙ্গের ভেতর ১০-১২ হাত পরপর ৪-৫ জন বসে কথা বলার মতো প্রশস্ত জায়গা আছে। সুড়ঙ্গের ভেতরে দু’পাশে এমনভাবে মাটি কাটা হয়েছে মনে হয় ধারালো খন্তা (মাটির কাটার যন্ত্র) ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া মাটিতে বালি ও কয়লা দেখা গেছে।

 

মঙ্গলবার বিকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় হাজারো লোক সুড়ঙ্গটি দেখতে সেখানে ভিড় করছেন। স্থানীয় মানুষের মনে সুড়ঙ্গটি নিয়ে আতঙ্গ বিরাজ করছে।

মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানার ওসি জাহিদুল কবিরের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বললে তিনি বলেন, ‘এতে আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নেই। বিষয়টি জানার পর আমাদের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

 

সূত্র – ইত্তেফাক

read more
রহস্যময় ঘটনা

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য সৌদির বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ ১৫ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ

Untitled-1 copy

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে হত্যা-নির্যাতনের মুখে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা মুসলমানদের জন্য ১৫ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করেছেন সৌদি বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ-আল সৌদ।

 

 

 

 

 

সৌদি রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা ও রিয়াদ ভিত্তিক বাদশাহ সালমান সেন্টার ফর রিলিফ অ্যান্ড হিউম্যানটেরিয়ান এইডের প্রধান তত্ত্বাবধায়ক ড. আবদুল্লা বিন আবদুলআজিজ আল রাবিয়া এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার তিনি বলেন, সালমান সেন্টারের একটি বিশেষ দল রোহিঙ্গাদের দুর্দশার চিত্র নির্ণয় করতে বাংলাদেশে যাবে। সেখানে তারা নির্ধারণ করবে শরণার্থীদের ত্রাণ, মানবিক সাহায্য ও আশ্রয়সহ কোন ধরনের জরুরি সহযোগিতা প্রয়োজন।

তিনি জানান, বাদশার নির্দেশনা অনুযায়ী শরণার্থীদের সহযোগিতার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে, এর মধ্যে কিছু প্রকল্প বিভিন্ন স্তরে বাস্তবায়ন করা হবে।

চলতি সপ্তাহে সৌদি মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে মিয়ানমারের মুসলমানদের ওপর ভয়াবহ নির্যাতনের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাস হয়েছে।

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বন্ধ করে কোনো ধরনের বৈষম্য ও বর্ণবাদী বিভাজন ছাড়াই তাদের সমান অধিকার দিতে সৌদি বাদশা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে জরুরি ব্যবস্থা দিতে যে আহ্বান জানিয়েছিলেন তা মন্ত্রিপরিষদ পুনর্ব্যক্ত করেছে।

সৌদি সরকার জানিয়েছে, ১৯৪৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত সৌদি আরব রাখাইনের মুসলমানদের ৫০ মিলিয়ন ডলার সাহায্য দিয়েছে।

সূত্র: মিডলইস্টমনিটর

 

 

 

 

 

সৌদি রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা ও রিয়াদ ভিত্তিক বাদশাহ সালমান সেন্টার ফর রিলিফ অ্যান্ড হিউম্যানটেরিয়ান এইডের প্রধান তত্ত্বাবধায়ক ড. আবদুল্লা বিন আবদুলআজিজ আল রাবিয়া এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার তিনি বলেন, সালমান সেন্টারের একটি বিশেষ দল রোহিঙ্গাদের দুর্দশার চিত্র নির্ণয় করতে বাংলাদেশে যাবে। সেখানে তারা নির্ধারণ করবে শরণার্থীদের ত্রাণ, মানবিক সাহায্য ও আশ্রয়সহ কোন ধরনের জরুরি সহযোগিতা প্রয়োজন।

তিনি জানান, বাদশার নির্দেশনা অনুযায়ী শরণার্থীদের সহযোগিতার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে, এর মধ্যে কিছু প্রকল্প বিভিন্ন স্তরে বাস্তবায়ন করা হবে।

চলতি সপ্তাহে সৌদি মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে মিয়ানমারের মুসলমানদের ওপর ভয়াবহ নির্যাতনের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাস হয়েছে।

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বন্ধ করে কোনো ধরনের বৈষম্য ও বর্ণবাদী বিভাজন ছাড়াই তাদের সমান অধিকার দিতে সৌদি বাদশা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে জরুরি ব্যবস্থা দিতে যে আহ্বান জানিয়েছিলেন তা মন্ত্রিপরিষদ পুনর্ব্যক্ত করেছে।

সৌদি সরকার জানিয়েছে, ১৯৪৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত সৌদি আরব রাখাইনের মুসলমানদের ৫০ মিলিয়ন ডলার সাহায্য দিয়েছে।

সূত্র: মিডলইস্টমনিটর

 

 

 

 

 

read more
রহস্যময় ঘটনা

জানোয়ারেরা মেয়েটির সাথে কী করলো, ভিডিওটা না দেখলে বিশ্বাস করতে পারবেন না !(ভিডিওসহ)

Untitled-1 copy

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

অন্যরা যা পড়েছে

 

 

 

 

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বরতার হাত থেকে বাঁচতে পালিয়ে বাংলাদেশে এলেও নির্মমতার কাছে হেরে না ফেরার দেশে চলে গেলেন এক রোহিঙ্গা পুরুষ। শিশু চুরির অভিযোগ এনে কক্সবাজারে তাকে মাটিতে ফেলে কিল-ঘুষি, লাথি ও গাছে বেঁধে নির্দয়ভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে উত্তেজিত একদল জনতা।

 

 

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য সান বলছে, ২০ জনেরও বেশি মানুষ ওই রোহিঙ্গা ব্যক্তির ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীদের মধ্যে অনেক তরুণ ছিল। রোহিঙ্গা ওই ব্যক্তিকে গাছের সঙ্গে বাঁধার আগে প্রাণভিক্ষা চান তিনি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা হাজার হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীর আশ্রয় হয়েছে কক্সবাজারে। সেখানেই শিশু চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে প্রাণ যায় ওই রোহিঙ্গার। রোহিঙ্গা এই ব্যক্তিকে গণপিটুনির দৃশ্য ধারণ করেছেন বার্তাসংস্থা এপির এক আলোকচিত্রী।

 

 

 

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, চারদিক থেকে উত্তেজিত জনতা তার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করছে। এসময় তিনি আঘাত থেকে বাঁচতে প্রাণপণ চেষ্টা চালান।

 

 

 

 

গণপিটুনির একপর্যায়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। নিস্তেজ শরীরে মাটিতে লুটিয়ে পড়েও রেহাই মেলেনি তার। পরে তাকে একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে মারপিট করা হয়। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, উত্তেজিত জনতার হাত থেকে বাঁচতে প্রাণ ভিক্ষা চান তিনি।

 

 

 

শেষ একটি ছবিতে দেখা যায়, নিষ্ঠুর নির্মমতার কাছে হার মেনে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান এই রোহিঙ্গা। মরদেহের চারপাশে ঘিরে রয়েছে লোকজন।

 

 

 

মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সংখ্যালঘু মুসলিম গোষ্ঠী রোহিঙ্গারা দেশটিতে পরিকল্পিত নিপীড়নের শিকার হয়ে তাদের নিজ ভূমি ছাড়তে বাধ্য হয়েছে।

 

 

গণপিটুনির একপর্যায়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। নিস্তেজ শরীরে মাটিতে লুটিয়ে পড়েও রেহাই মেলেনি তার। পরে তাকে একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে মারপিট করা হয়। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, উত্তেজিত জনতার হাত থেকে বাঁচতে প্রাণ ভিক্ষা চান তিনি।

 

 

 

শেষ একটি ছবিতে দেখা যায়, নিষ্ঠুর নির্মমতার কাছে হার মেনে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান এই রোহিঙ্গা। মরদেহের চারপাশে ঘিরে রয়েছে লোকজন।

 

 

 

মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সংখ্যালঘু মুসলিম গোষ্ঠী রোহিঙ্গারা দেশটিতে পরিকল্পিত নিপীড়নের শিকার হয়ে তাদের নিজ ভূমি ছাড়তে বাধ্য হয়েছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

read more
রহস্যময় ঘটনা

কুমিল্লার এই গৃহবধূর স্বামী বিদেশ থাকায় নিজের বন্ধুর সাথে অবৈ্ধ সম্পর্ক গড়ে তোলে ! অতঃপর কি হল দেখুন …(ভিডিওসহ)

Untitled-1 copy

কুমিল্লার এই গৃহবধূর স্বামী বিদেশ থাকায় নিজের বন্ধুর সাথে অবৈ্ধ সম্পর্ক গড়ে তোলে ! প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।  প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।  প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।

 

 

 

 

 

 

 

প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।  প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।  প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।  প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।  প্রতদিনের অপরাধের সব খবর জানতে an entertainment পেজের সাথে থাকুন ।

                                                               

 

 

 

 

                                                                                  ভিডিওটি দেখুন নিচে 

 

 

 

 

 

 

 

আরও পড়ুন…

 

মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সু চির সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। রোহিঙ্গাদের সঙ্গে মিয়ানমার সরকার যে আচরণ করছে, সে বিষয়ে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছেন তিনি। রোহিঙ্গা সংকটে নৈতিক ও রাজনৈতিক নেতা হিসেবে সু চির ভূমিকার ব্যাপারে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেছেন ট্রুডো।

 

 

 

 

 

গতকাল বুধবার সুচির সঙ্গে ফোনে কথা বলেন ট্রুডো। সু চিকে কানাডার দেওয়া সম্মানসূচক নাগরিকত্ব প্রত্যাহারের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে দুই নেতার মধ্যে ফোনালাপ হলো। ট্রুডো টুইটারে লিখেছেন, ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ব্যাপারে কানাডার গভীর উদ্বেগ জানাতে আমি আজ (বুধবার) অং সান সু চির সঙ্গে কথা বলেছি।’

 

 

 

 

 

 

 

দুই নেতার ফোনালাপ সম্পর্কে কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে সংক্ষিপ্তসার জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে মিয়ানমারের সামরিক ও বেসামরিক নেতাদের জরুরি ভিত্তিতে শক্ত অবস্থান গ্রহণের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে সু চিকে চাপ দিয়েছেন ট্রুডো। তিনি বেসামরিক লোকজনকে সুরক্ষা দিতে বলেছেন। জাতিসংঘের মানবিক সহায়তা দলকে রাখাইনে প্রবেশের অনুমতি দিতে বলেছেন।

 

 

 

 

 

 

কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়েছে, সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা ও অধিকারের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে দুই নেতার মধ্যে কথা হয়েছে। মিয়ানমারে একটি শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীল সমাজ গড়তে কানাডা সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

read more
1 2
Page 1 of 2