close

রাজনীতি

রাজনীতি

এবারের নির্বাচন নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন টিআইবি

Untitled-2-copy-62

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ৫০টির মধ্যে ৪৭ আসনে অনিয়ম হয়েছে। ৩০০ আসনের মধ্য থেকে দৈবচয়নের (লটারি) ভিত্তিতে এই ৫০ আসন বেছে নেয়া হয়। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) প্রকাশিত এক প্রাথমিক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

 

গবেষণায় অন্তর্ভুক্ত আসনগুলোতে আওয়ামী লীগ ৪০, জাতীয় পার্টি ছয়, বিএনপি এক, গণফোরাম দুই এবং অন্যান্য দল একটি আসনে জয়ী হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, সারাদেশের বেশিরভাগ কেন্দ্র আওয়ামী লীগসহ মহাজোটের নেতাকর্মীদের দখলে থাকার অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে।

 

নির্বাচন কমিশন অনেক ক্ষেত্রে যথাযথ ভূমিকা পালনে সমর্থ হয়নি।মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) রাজধানীর ধানমন্ডিতে টিআইবির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান ও প্রতিবেদন পাঠ করেন গবেষক

দলের শাহজাদা এম আকরাম।গত বছরের নভেম্বর থেকে শুরু করে ভোটের দিন ও চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত তথ্যের ভিত্তিতে এই প্রাথমিক প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত তথ্য সংগ্রহ করে চূড়ান্ত প্রতিবেদক প্রকাশ করবে প্রতিষ্ঠানটি। অনিয়মগুলোর মধ্যে রয়েছে

 

প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী বাহিনীর নীরব ভূমিকা ৪২ আসনে, জাল ভোট দেয়া ৪১ আসনে, নির্বাচনের আগের রাতে ব্যালটে সিল মেরে রাখা ৩৩ আসনে, বুথ দখল করে প্রকাশ্যে সিল মেরে জাল ভোট ৩০ আসনে, পোলিং এজেন্টকে কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়া ও কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া ২৯

আসনে, ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়া ২৬ আসনে, ভোটারদের জোর করে নির্দিষ্ট মার্কায় ভোট দিতে বাধ্য করা ২৬ আসনে, ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যাওয়া ২২ আসনে, আগ্রহী ভোটারদের হুমকি দিয়ে তাড়ানো ২১ আসনে, ব্যালট বাক্স আগে থেকে ভরে রাখা ২০ আসনে, প্রতিপক্ষ দলের প্রার্থীর

 

নেতাকর্মীদের মারধর করা ১১ আসনে, পোলিং এজেন্টকে কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়া ২৯ আসনে এবং ১০ আসনে কোনও এজেন্ট ছিল না। জাতীয় পর্যায়ে আওয়ামী লীগ ২৫৭, জাতীয় পার্টি ২২, বিএনপি ছয়, গণফোরাম দুই, স্বতন্ত্র তিন ও অন্যান্য দল নয়টি আসনে জয়ী হয়। ভোটের দিন সারা দেশে ২৪

জেলায় নির্বাচনী সহিংসতার ফলে ১৮ জনের মৃত্যু হয় এবং ২০০ জন আহত হন। প্রতিবেদনের সুপারিশে বলা হয়, সৎ ও নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেয়া; নির্বাচন কমিশন, প্রশাসন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ অন্যান্য অংশীজনদের দলীয় প্রভাবমুক্ত ও নিরপেক্ষ রাখতে

 

হবে; নির্বাচনে সহিংসতা ও বলপ্রয়োগসহ নির্বাচনী আচরণবিধির বহুমুখী লঙ্ঘনের যেসব অভিযোগ উঠেছে, সেগুলোর সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত ও তার ওপর ভিত্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। সরকারের পক্ষ থেকে এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে বিচারবিভাগীয় তদন্তের উদ্যোগ নেয়া, আচরণবিধি

লঙ্ঘনের ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনকে তাদের ব্যর্থতা নিরূপণ করা, নির্বাচন প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজ করা, নির্বাচন পর্যবেক্ষক ও গণমাধ্যমের তথ্য সংগ্রহের জন্য অবাধ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। এ সময় টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘আচরণবিধি লঙ্ঘিত হয়েছে, সে

 

পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। গণতন্ত্রের জন্য এ ধরনের নির্বাচন ইতিবাচক নয়। এ জন্য আমরা বিচারবিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছি।’এ সময় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা সুলতানা কামাল বলেন, ‘এই নির্বাচনে প্রচুর ত্রুটি রয়েছে। আগামী নির্বাচনগুলোতে যাতে ত্রুটি না হয়, সেজন্য যে সরকারই আসুক না কেন, তাদের প্রতি আহ্বান থাকবে।

read more
রাজনীতি

৬ মন্ত্রীর এপিএস নিয়োগ

E7obcs_1547475836

পাঁচ মন্ত্রী ও এক প্রতিমন্ত্রীর জন্য সহকারী হিসেবে একান্ত সচিব (এপিএস) নিয়োগ দিয়েছে সরকার। আজ সোমবার (১৪ জানুয়ারি) মন্ত্রীদের অভিপ্রায়ের উপর ভিত্তি করে এপিএস নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের

 

এপিএস হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন কে এম সিংহ রতন। তাছাড়া সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এপিএস হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সহকারী অধ্যাপক আবুল তাহের মো. মহিদুল হক। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সহকারী একান্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মনির

 

হোসেন। ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর সহকারী একান্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন রিদওয়ানুল করিম চৌধুরী। পরিবেশ, বন ও জলবায়ূ পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শাহাব উদ্দিনের এপিএস হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন কবিরুজ্জামান চৌধুরী। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর

 

রহমানের সহকারী একান্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন শামীম আহাম্মদ। উল্লেখ্য, মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা যতোদিন চাইবেন এপিএসরা ততোদিন দায়িত্ব পালন করবেন।

read more
রাজনীতি

হঠাৎ প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ উপদেষ্টা নিয়োগ”!!

Capture

পাঁচ জনকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা নিয়োগ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। সোমবার (১৪ জানুয়ারি) এই নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। তারা মন্ত্রীর পদমর্যাদা ভোগ করবেন। নিয়োগ প্রাপ্তরা হলেন- এইচ টি ইমাম (রাজনৈতিক),

 

ড. মসিউর রহমান (অর্থনৈতিক), ড. গওহর রিজভী (আন্তজার্তিক সম্পর্ক), ড. তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী (বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ) এবং মেজর জেনারেল (অব:) তারিক আহমেদ সিদ্দিক (নিরাপত্তা)।

নতুন মন্ত্রিসভার শপথ নেওয়ার এক সপ্তাহ পর আজ এই পাঁচজনকে ফের উপদেষ্টা নিয়োগ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশ হয়। নতুন সরকারের শপথ নেওয়ার দিন গত ৭ জানুয়ারি থেকে এদের নিয়োগ কার্যকরা ধরা হয়েছে। নতুন সরকার গঠনের পর আগের মন্ত্রিসভা বাতিল হয়ে যায়। একই সঙ্গে বাতিল হয়ে যায় এই পাঁচ উপদেষ্টার নিয়োগও।

 

তাই এখন আবার তাদের নতুন করে নিয়োগ দেয়া হল। গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের পর গত ৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা শপথ নেন। নতুন সরকারের মন্ত্রিসভায় ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী এবং তিনজন উপমন্ত্রী নিয়োগ দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

 

read more
রাজনীতি

সংরক্ষিত মহিলা আসনের তফসিলের তারিখ ঘোষণা

W5LjBB_1547467581

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিলের জন্য তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সোমবার (১৪ জানুয়ারি) আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে এক বৈঠক শেষে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এই কথা জানান।

 

তিনি জানান, আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি তফসিল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোকে এই ব্যাপারে চিঠি দেওয়া হবে বলেও জানান ইসি সচিব। এর আগে বিকেল তিনটায় দুই সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসে ইসি।

 

বৈঠকে উপজেলা নির্বাচনের তফসিল কবে নাগাদ ঘোষণা হতে পারে এবং কয় ধাপে ও কোন কোন তারিখে ভোট গ্রহণ হতে পারে, সে বিষয়ে আলোচনা হয়।

read more
রাজনীতি

ফের সংলাপে বসার কারণ জানালেন ওবায়দুল কাদের

C8jY9z_obaidul

নির্বাচনের আগে যেসব দল এবং জোট সংলাপে অংশ নিয়েছে, তাদের নিয়ে ফের সংলাপে বসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শিগগিরই এই সংলাপের জন্য দলগুলোকে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে জানিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

 

এবার ফের সংলাপে বসার কারণ জানালেন ওবায়দুল কাদের। আজ সোমবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেলে সাংবাদিকদের এ বিষয়ে জানান তিনি। সংলাপের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গণভবনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের আবারো সংলাপ নতুন

 

করে নির্বাচন আয়োজনের জন্য নয়, নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য। এসময় তিনি আরো বলেন, সারা বিশ্ব, বিশেষ করে গণতান্ত্রিক বিশ্ব সদ্য সমাপ্ত যে নির্বাচনকে অভিনন্দিত করেছে। সেই নির্বাচনের পর আর কোনো নতুন নির্বাচনের প্রসঙ্গ হাস্যকর। সেতুমন্ত্রী বলেন, যারা ভেবেছিলো

দলীয় অন্তর্কলহে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পরাজয় ঘটবে, তাদের ধারণা ভুল প্রমাণিত হয়েছে। আওয়ামী এতোটাই ঐক্যবদ্ধ ছিলো যে বিজয় থেকে মহাবিজয়ে উন্নীত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, কিছুটা দুর্ভোগ হবে৷ জনগণের কাছে আগাম ক্ষমা চেয়ে সবাইকে বিজয় সমাবেশে যোগ দেয়ার আহ্বান

 

জানাচ্ছি৷ কেননা, এই মহানগরবাসীই নৌকাকে ক্ষমতায় এনেছে৷ প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ।

 

অন্যদিকে মাত্র আটটি আসন পাওয়া ঐক্যফ্রন্ট শপথ না নেয়ার ঘোষণা দিয়ে অবিলম্বে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানায়। আর ড. কামাল হোসেন জোটের পক্ষ থেকে জাতীয় সংলাপ করার ঘোষণা দেন।

read more
রাজনীতি

সিলেটে মির্জা ফখরুলসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতারা

Untitled-1 copy

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা সিলেটে পৌঁছেছেন। আজ সোমবার দুপুর পৌনে ১২টায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এসে পৌঁছান তারা। সফরকারী দলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা

 

ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও রয়েছেন জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী বীর-উত্তম, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান বীর প্রতীক, গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক

 

মোস্তফা মোহসীন মন্টু প্রমুখ। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির নেতাদের মধ্য থেকে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না আজ ঢাকার একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। সেজন্য তিনি সিলেট যাননি বলে জানা গেছে। ঐক্যফ্রন্টের নেতারা হজরত শাহজালাল (র.) ও শাহপরান (র.)-

এর মাজার জিয়ারত করবেন। এরপর সিলেটের বালাগঞ্জে গত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত সিলেট-৩ আসনের বালাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সায়েম আহমদ সুহেলের কবর জিয়ারত করবেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। এরপর নিহত সুহেলের পরিবারের সদস্যদের

 

সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভোটের দিন ক্ষতিগ্রস্ত নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শন করবেন এবং বিকেলে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন। এই সফরের মাধ্যমে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা তাদের পূর্বঘোষিত তিন দফা কর্মসূচি শুরু করলেন। ধারাবাহিকভাবে নির্বাচনী সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের অন্যান্য এলাকাও পরিদর্শন

 

করবেন তারা। গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট চলাকালে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে সিলেট-৩ আসনের বালাগঞ্জ উপজেলার আজিজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ছাত্রদল নেতা সুহেল নিহত হন।

read more
রাজনীতি

সংলাপ কী নিয়ে জানতে চান ডঃ কামাল হোসেন

_105166583_0895501a-56bf-4080-b4cd-16c43392d27c

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে আবারও সংলাপে বসার যে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন, তাতে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে কী নিয়ে এই সংলাপ তা জানতে চান গণফোরামের নেতা ড: কামাল হোসেন। বিবিসি বাংলার মিজানুর রহমান খানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে

 

তিনি বলেন, ” প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ডাকবেন সংলাপে, একটু তো ইঙ্গিত থাকবে কী কী বিষয় নিয়ে এই সংলাপ। যদি সেটা আমাদের কাছে বিবেচনাযোগ্য হয়, তখন আমরা কমিটিতে সিদ্ধান্ত নেব এব্যাপারে।” প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সংলাপের আমন্ত্রণ এলে তাতে সাড়া দেবেন কীনা, এই

 

প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “নীতিগতভাবে আমি একে একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ বলে বিবেচনা করবো। কিন্তু সেটা জানতে হবে কী প্রেক্ষাপটে এটার আয়োজন করা হচ্ছে, কী বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে।” উল্লেখ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, গতকাল দলের

এক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই এই সংলাপের কথা বলেন। তিনি জানান, নির্বাচনের আগে যেসব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ হয়েছিল তাদের সঙ্গে আবারও সংলাপ হবে। নির্বাচনের আগে ঐ সংলাপে অংশ নিয়েছিল বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, জাতীয় পার্টি, যুক্তফ্রন্ট সহ আরও বহু

 

দল। ঐ সংলাপের সময়েই বিরোধী দলগুলো নির্বাচনে অংশ নেয়ার কথা ঘোষণা করে। কেন সংলাপ ছবির কপিরাইটPMO Image caption নির্বাচনের আগে সংলাপে জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ নির্বাচনে জয়লাভ করে সরকার গঠনের পর কেন এরকম একটি সংলাপের উদ্যোগ নিচ্ছেন

প্রধানমন্ত্রী? বিবিসির বাংলার মিজানুর রহমান খানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সরকারের একজন মন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, “প্রধানমন্ত্রী চান সবাইকে নিয়ে দেশ পরিচালনা করতে। সেই লক্ষ্যেই তিনি কিন্তু ৭০টির বেশি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে

 

সংলাপ করেছিলেন নির্বাচনের আগে। তখন শুধু রাজনীতি নয়, দেশ গঠনের বিভিন্ন বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী যে তাদের ভুলে যাননি, তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করার আগ্রহ যে তাঁর আছে, সেই বিষয়টাই এখানে পরিস্ফুটিত হয়েছে।” কী কথা হতে পারে সংলাপে যদি প্রধানমন্ত্রীর

সঙ্গে সংলাপে যোগ দেন, সেখানে কী জানাবেন তাঁকে? এ প্রশ্নের উত্তরে ডঃ কামাল হোসেন বিবিসিকে বলেন, সেখানে অবশ্যই নির্বাচনের ব্যাপারে কথা হবে। তিনি বলেন, “সংলাপের প্রস্তাব আসলে প্রথমে আমরা জানতে চাইবো যে কী বিষয় নিয়ে হবে। তারপর আমাদের কমিটির বৈঠক হবে। ওখানে

 

বসে আমরা আমরা আলোচনা করে সুচিন্তিত উত্তর দেব।” আরও পড়ুন: ‘নিরাপত্তা হুমকি’র মুখে ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেন বিবিসি বাংলার সঙ্গে সাক্ষাৎকারে কী বলেছেন ড. কামাল কেন নির্বাচন করছেন না ড. কামাল হোসেন ড: কামাল হোসেন বলেন, সংলাপে যোগ দেয়া বা না দেয়ার

সিদ্ধান্তটি তারা প্রথম নিজ দল গণফোরাম থেকেই নেবেন। বিরোধী জোট জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, নির্বাচনের আগের অবস্থার সঙ্গে এখনকার অবস্থার একটা পার্থক্য রয়েছে। কাজেই যে কোন প্রস্তাবের ব্যাপারে এখন নতুন করে চিন্তা করতে হবে। জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের

 

চেয়ে এখন তিনি গণফোরামকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন কীনা, এ প্রশ্নের জবাবে ডঃ কামাল হোসেন বলেন, “এটা তো সবসময় দিতে হয়। নিজের পার্টিকে গুরুত্ব দিয়ে তার পর তো ঐক্য ফ্রন্ট।” যদি বিএনপি এই সংলাপে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তখন কী গণফোরাম সংলাপ যাবে? এর উত্তরে ডঃ কামাল হোসেন বলেন, এটা একদম স্পেকুলেট করা উচিৎ নয়। এটা যখন ঘটবে তখন আমরা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

read more
রাজনীতি

পোশাক শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি নিয়ে যে নির্দেশ দিলো প্রধানমন্ত্রী

Untitled-1-copy-62-812×400

শ্রমিকদের জন্য ঘোষিত মজুরির কয়েকটি গ্রেডে বেতন আশানুরূপ বৃদ্ধি না পাওয়ায় গার্মেন্টস শিল্পের উদ্ভূত বিশৃঙ্খল পরিস্থিতিতে সরকার উক্ত গ্রেটগুলোর মধ্যে সমন্বয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পোশাক শ্রমিকদের মজুরি যৌক্তিক হারে বৃদ্ধির নির্দেশ দেয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে

 

বলে জানা গেছে।আজ (রোববার) শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ান মজুরি ঘোষণা দেবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, দেশের অর্থনীতির প্রাণ শক্তি গার্মেন্ট শিল্প এবং এ খাতের শ্রমিকদের স্বার্থ সংরক্ষণের বিষয়

 

বিবেচনায় সরকার দ্রুত ত্রি-পক্ষীয় মজুরি কমিটি গঠন করে। সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের মতের ভিত্তিতে এবং শ্রমিকদের স্বার্থে ৩, ৪ ও ৫ নম্বর গ্রেডে মজুরি সমন্বয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হতে পারে। সূত্র মতে শ্রমিক বান্ধব সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩, ৪ ও ৫ নম্বর গ্রেডের সঙ্গে ১ এবং ২ নং গ্রেডের

মজুরি সমন্বয়ের নির্দেশ দিয়েছেন। এর ফলে সমন্বয়ের পর প্রতিটি গ্রেডে এই মজুরি যৌক্তিক হারে বাড়বে। এদিকে সোমবার (১৪ জানুয়ারি) থেকে শ্রমিকরা কারখানায় এসে কাজে যোগ না দিলে কোনো মজুরি দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও

 

রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)।রোববার দুপুরে পোশাক শিল্পে উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান সংগঠনের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। প্রসঙ্গত নতুন মজুরি কাঠামো অনুযায়ী প্রতিশ্রুত মজুরি প্রদান এবং মজুরি কাঠামো পরিবর্তনের দাবিতে গত বেশ কয়েকদিন ধরেই রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কাজ বন্ধ রেখে আন্দোলন করছেন পোশাক শ্রমিকরা।

read more
রাজনীতি

অবশেষে বিরোধী দল নিয়ে মুখ খুললেন কারাবন্দি খালেদা জিয়া

safe_image

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘বিরোধী দল শুধু পার্লামেন্টের ভেতরেই হয় না, পার্লামেন্টের বাইরেও বিরোধী দল হয়। যারা জনগণের কথা বলে, মানুষের অধিকারের কথা বলে তারাই বিরোধী দল।’ রোববার দুপুরে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো

 

কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত ঢাকার ৯ নং বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমানের আদালতে নাইকো দুর্নীতি মামলার শুনানির সময় তিনি একথা বলেন। শুনানিতে খালেদার আইনজীবী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আজ আমরা বিরোধী দলে আছি বলেই আমাদের

 

এই অবস্থা।’ এ সময় পাশ থেকে বিরোধী পক্ষের এক আইনজীবী প্রশ্ন করেন- ‘আপনারা কি বিরোধী দলে আছেন?’ তখন এর জবাবে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। এর আগে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে হুইল চেয়ারে করে খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করা হয়। এই কারাগারেই দুর্নীতি মামলায়

সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বন্দী রয়েছেন তিনি। আজ মামলাটির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য রয়েছে। মামলা সূত্রে জানা গেছে, কানাডীয় প্রতিষ্ঠান নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের

 

(দুদক) সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় নাইকো দুর্নীতি মামলাটি করেন। মামলা করার পরের বছর ৫ মে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। পরে

আসামিদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়। মামলার অন্য আসামিরা হলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন,

 

বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, বাপেক্সের সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, বাগেরহাটের সাবেক সংসদ সদস্য এম এ এইচ সেলিম এবং নাইকোর দক্ষিণ এশিয়া-বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা

জিয়া দুদকের দায়ের করা দুই মামলায় ১০ ও ৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন। আপিলে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ড বেড়ে ১০ বছর এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিশেষ আদালতে ৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন তিনি। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট

 

দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার পর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে বন্দি রাখা হয়। সেখান থেকেই গত ৬ অক্টোবর চিকিৎসকদের পরামর্শে খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে নেয়া হয়। টানা এক মাস ২ দিন বিএসএমএমইউয়ে চিকিৎসা নেয়ার পর ৮ নভেম্বর তাকে কারাগারে ফিরিয়ে নেয়া হয়।

উৎসঃ জাগোনিউজ

read more
রাজনীতি

তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু

Capture

আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন বিদেশে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। রাজধানীর বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে আজ রবিবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সহকারী জজ/সমমনা

 

কর্মকর্তাদের চার মাসব্যাপী ৩৮তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।আইনমন্ত্রী বলেন, শুধু তারেক রহমানই নন, বিদেশে অবস্থানরত সব অপরাধীদের ফিরিয়ে আনতে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ প্রক্রিয়া চলমান। এ ছাড়াও নবীন বিচারকদের উদ্দেশে

 

মন্ত্রী বলেন, উন্নত দেশে ৯০ ভাগ মামলাই আদালতের বাইরে নিষ্পতি হয়। মামলা জট কমাতে নতুন বিচারকরা আদালতের বাইরে নিষ্পত্তির ব্যাপারে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করবেন। ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, কোয়ালিটি জুডিশিয়ারি গড়ে তুলতে

 

সরকার সহযোগিতা করে যাচ্ছে। কোয়ালিটি বিচার অনেক চ্যালেঞ্জের। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিচার প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খন্দকার মুসা খালেদে, ইনস্টিটিউটের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) গোলাম কিবরিয়া, আইন সচিব আবু সালেহ মো. শেখ জহিরুল হক প্রমুখ।

read more
1 2 3 4 29
Page 2 of 29